Bahumatrik | বহুমাত্রিক

সরকার নিবন্ধিত বিশেষায়িত অনলাইন গণমাধ্যম

ফাল্গুন ১১ ১৪৩০, শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

ওএমএসের চাল বিক্রিতে অনিয়মের অভিযোগ আওয়ামী লীগ নেত্রীর বিরুদ্ধে

গাজীপুর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২৩:০৫, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩

প্রিন্ট:

ওএমএসের চাল বিক্রিতে অনিয়মের অভিযোগ আওয়ামী লীগ নেত্রীর বিরুদ্ধে

ছবি: বহুমাত্রিক.কম

গাজীপুরে হতদরিদ্রদের জন্য বরাদ্দকৃত ওএমএসের চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় ডিলার ও আওয়ামী লীগ নেত্রী সালমা আক্তার জাহানের বিরুদ্ধে। প্রতিনিয়ত টাকার বিনিময়ে পরিচিতদের বেশি পরিমাণে চাল ও আটা দিচ্ছেন তিনি।  

গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সহ প্রচার সম্পাদিকাসহ জেলার এক ডজনের বেশি কমিটির গুরুত্বপূর্ণ পদে নাম রয়েছেন ডিলার সালমা আক্তার জাহানের। নগরীর জয়দেবপুর বাজার পয়েন্টে বিক্রির কথা থাকলেও পশ্চিম বিলাশপুর এলাকায় একটি বাড়ির নিচতলায় মালামাল রেখে বিক্রি করেন তিনি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ওএমএসের চাল নেয়ার জন্য পয়েন্টের পূর্বে নারী-পুুরুষের দুটি পৃথক লাইন, পশ্চিমে নারী-পুরুষ উভয়ের একটি লাইন। পশ্চিশ পাশের লাইনের লোকজন সংখ্যক কম। তবে পশ্চিমের লাইনে দাঁড়ানো লোকজন প্রশাসনের গাড়ি দেখলে চলে যাচ্ছেন, আবার গাড়ি চলে গেলে লাইনে পুনরায় আসছেন। লাইনে দাঁড়ানো নিয়ামত সড়ক এলাকার ছাবিনা (৬০) বলেন, আমরা প্রতিবন্ধী আমাদের সপ্তাহে একদিন দিবে বলছে, দুই সপ্তাহ যাবত আসতেছি আমাকে দেয়নি। আজও আমাকে দিবে না বলছে। এমনও লোক আছে যারা ১৫-২০ কেজি করে নিতেছে। আমরা ভয়ে প্রতিবাদও জানাতে পারি না। আপনাদের সাথে কথা বলায় আমাকে মাল আর দিবেনা বলতেছে। লাইনে থাকা আরো কয়েকজন জানান, সবার মতো লাইনে দাঁড়িয়েছি। পাবো কিনা জানিনা। বেশিরভাগ দিনই খালি হাতে ফিরে যেতে হয়। অন্যদিকে অনেকে পুরো বস্তা ভরে নিয়ে যায়। 

সরেজমিনে আরো জানা যায়, মূলত অতিরিক্ত অর্থের বিনিময়ে অনেককে ১৫-২০ কেজি করে দেয়ায় দ্রুতই ওএমএসের চাল-আটা শেষ হয়ে যায়। যার ফলে হতদরিদ্র অনেক মানুষ বঞ্চিত হন সরকারি এ সেবা থেকে। 
ঘটনাস্থলে সাংবাদিকদের উপস্থিতি টেরপেয়ে স্থানীয় বাবুল চৌধুরী নামের একজন লোক হাজির হন। তিনি এসে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলা লাইনে দাঁড়ানো লোকজনকে দমকাতে থাকেন। যার ফলে পরে আর গনমাধ্যমের সাথে আর কথা বলতে রাজি হননি তারা। 

সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে অভিযুক্ত ডিলার সালমা আক্তার জাহান বলেন, আমি দীর্ঘ ৩০ বছর যাবত আওয়ামী লীগের সেবক হিসেবে এই ডিলারটি চালাচ্ছি। আমরা শুধু মুক্তিযোদ্ধা ও প্রতিবন্ধীদের বেশি দিয়ে থাকি, আগে দেয়ার চেষ্টা করি। অনেক সময় মাল কম আসে, সেক্ষেত্রে সবাইকে আর দেয়া সম্ভব হয়না। 

গাজীপুর সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা মো. মোজ্জামেল হক বলেন, পূর্বেও এমন অভিযোগ পেয়ে ডিলার সালমা আক্তার জাহানকে ডেকে সর্তক করেছিলাম। ওএমএসের চাল দেয়া হয় হতদরিদ্র মানুষের জন্য। এখানে কোন ধরনের অনিয়মকে প্রশ্রয় দেয়া হবে না। অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে। 
 

Walton Refrigerator Freezer
Walton Refrigerator Freezer