Bahumatrik | বহুমাত্রিক

সরকার নিবন্ধিত বিশেষায়িত অনলাইন গণমাধ্যম

আষাঢ় ১ ১৪৩১, রোববার ১৬ জুন ২০২৪

ঘেরাটোপে অবরুদ্ধ হচ্ছে গাজীপুর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০৮:১১, ৬ মার্চ ২০২২

প্রিন্ট:

ঘেরাটোপে অবরুদ্ধ হচ্ছে গাজীপুর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার

ঘেরাটোপে অবরুদ্ধ হতে চলেছে গাজীপুর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও মুক্তমঞ্চ। পবিত্রতা রক্ষার নামে ঘেরাটোপ নির্মাণ করে কার্যত শৃঙ্খলবদ্ধ করে ফেলা হচ্ছে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণকে। এতে করে শহীদ মিনার মুক্তমঞ্চে অনুষ্ঠানাদি করার পরিবেশ ও উদ্দেশ্য দারুণভাবে ব্যহত হবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন সাংস্কৃতিক কর্মীরা। গাজীপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে শনিবার রাত ৮টায় সাংস্কৃতিক কর্মীরা তাৎক্ষণিক এক বৈঠকে মিলিত হন।

সেখানে এ ব্যাপারে তাদের আপত্তির কথা উত্থাপন করে বক্তব্য দেন। তারা বলেন, মূল নকশার বাইরে অপরিকল্পিতভাবে শহীদ মিনারের সামনের সিঁড়ির উপর দিয়ে আরসিসি কলাম করা হচ্ছে। এটা দেখে সাংবাদিকদের দ্বারস্থ হয়েছি।

এ বিষয়ে সন্ধ্যারাতে মুঠোফোনে গাজীপুর জেলা প্রশাসক আনিসুর রহমান জানিয়েছেন, শহীদ মিনারের পবিত্রতা রক্ষার জন্য এটাকে সংরক্ষিত করা হবে। যাতে যে কেউ এখানে ঢুকে শহীদ মিনারের পবিত্রতা ও পরিবেশ বিনষ্ট করতে না পারে। সেজন্য ঘেরাও কাজ চলছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গাজীপুরের সাবেক জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর ভাস্কর্য শিল্পী কুয়াশা বিন্দুকে দিয়ে এই শহীদ মিনারের খসড়া পরিকল্পনা ও নকশা প্রস্তুত করান।

শিল্পী কুয়াশা বিন্দু জানান, গাজীপুর এলজিডির তত্ত্বাবধানে চূড়ান্ত নকশা তৈরি করে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের কাজ করা হয়। এখনও কিছু কাজ বাকি রয়েছে। টয়লেট ও ড্রেসিংরুম করার কথা ছিলো এখানে। তা করা হয়নি এখনও।

মুঠোফোনে এ বিষয়ে গাজীপুর এলজিডির নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল বারেক জানান, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে তাদের কাজ সমাপ্ত হয়ে গেছে। জেলা প্রশাসকের অনুরোধে বর্তমানের এ কাজটি বাস্তবায়ন করছেন গাজীপুর সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ। সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মজিবুর রহমান কাজল এ বিষয়ে বলেন, জেলা প্রশাসকের পরিকল্পনা ও তদারকিতে আমরা এ কাজটি করে দিচ্ছি।

গাজীপুর জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের যুগ্ম-সম্পাদক মিজানুর রহমান মজনু বলেন, গত ২১ ফেব্রুয়ারি পালনের প্রস্তুতি সভায় আমরা ওই কাজটি কিভাবে করলে শহীদ মিনারে সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড চালাতে কোন বিঘ্ন ঘটবে না- তা উপস্থাপন করেছি। কিন্তু সে প্রস্তাবের সাথে এ কাজের কোন মিল নেই। এ রকম অপরিকল্পিতভাবে কাজ করা হলে শহীদ মিনার কার্যত অবরুদ্ধ হয়ে পড়বে।

সাংবাদিক ও অভিনয় শিল্পী সৈয়দ মোকছেদুল আলম (লিটন) এক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, শহীদ মিনারের মুক্তমঞ্চ কিভাবে সাংস্কৃতিক কর্মীরা সুন্দরভাবে ব্যবহার করতে পারবে- তা মাথায় রেখে পবিত্রতা রক্ষার কাজটি করতে হবে। কিন্তু শহীদ মিনারের সিঁিড়র উপর দিয়ে আরসিসি পিলার করে পবিত্রতা রক্ষার নামে যা করার চেষ্টা করা হচ্ছেÑ তা কার্যত শহীদ মিনারকে শৃঙ্খলবদ্ধ করার মতো বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমার মতে, এরকমভাবে ঘেরাটোপ তৈরি করা বিজ্ঞচিত হবে না। প্রকৃত অর্থে একুশের চেতনাকে এভাবে আহত করা উচিত হবে না।

শনিবার রাত ৮টায় সাংস্কৃতিক কর্মীরা গাজীপুর প্রেসক্লাবে এ বিষয়ে এক মতবিনিময় সভায় মিলিত হন। অভিনয় শিল্পী ও সাংস্কৃতিক কর্মী হাসিমুন নেছা, আশরাফী ফরিদ, সংগীতা রোজারিও, ভাস্কর্য শিল্পী কুয়াশা বিন্দু, মোঃ সিরাজুল ইসলাম, হায়দার সিদ্দিকী উদয়, সাজেদা রোজী, খন্দকার রফিক, নাদিম মোড়ল, অন্তরা ধনী, মামুন শেখ, আবু ইউসুফ প্রধান, রায়হান আবির, মোঃ আমিরুল ইসলাম, মোঃ রনি আলম চৌধুরী, শাহীন উদ্দিন ও অন্যান্যরা বিস্ময় ও ক্ষোভ প্রকাশ করে তাদের বক্তব্য ও দাবি তুলে ধরেন। তাঁরা অবিলম্বে শহীদ মিনার মুক্তমঞ্চকে অবরুদ্ধ না করে পরিকল্পিত উপায়ে এর পবিত্রতা রক্ষার উদ্যোগ গ্রহণ করতে অনুরোধ জানান জেলা প্রশাসনের কাছে।

এ সময় গাজীপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রাহিম সরকার সংহতি প্রকাশ করে তাদের দাবির সাথে একমত পোষণ করেন। শেষে আজ রোববার জেলা প্রশাসকের সাথে সাক্ষাত করে এ বিষয়ে তাদের বক্তব্য ও প্রস্তাবনা উপস্থাপন করা হবে বলে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন উপস্থিত সাংস্কৃতিক কর্মীরা।

বহুমাত্রিক.কম

Walton Refrigerator Freezer
Walton Refrigerator Freezer