Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
২৯ আশ্বিন ১৪২৬, মঙ্গলবার ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৫:১৩ পূর্বাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

ল্যান্ডার বিক্রম চন্দ্রপৃষ্ঠে ‘হার্ড ল্যান্ডিং’ করেছে


২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ শনিবার, ০২:৫৪  পিএম

বহুমাত্রিক ডেস্ক


ল্যান্ডার বিক্রম চন্দ্রপৃষ্ঠে ‘হার্ড ল্যান্ডিং’ করেছে

ঢাকা: ভারতের চন্দ্রযান-২ এর অবতরণকারী (ল্যান্ডার) বিক্রমের চন্দ্রপৃষ্ঠে কঠিন অবতরণ বা হার্ড ল্যান্ডিং হয়েছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। অবতরণের ঠিক কয়েক মিনিট আগে গ্রাউন্ড স্টেশনের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ায় চন্দ্রযান-২ মিশন ব্যর্থ হয়।

শুক্রবার নাসা জানিয়েছে, তাদের বিজ্ঞানীদের একটি দল এখনও ল্যান্ডার বিক্রম চন্দ্রপৃষ্ঠের ঠিক কোথায় আছে তা শনাক্ত করতে সক্ষম হয়নি। গত ৭ সেপ্টেম্বর চন্দ্রযান-২ এ থাকা ল্যান্ডার বিক্রম চাঁদের অদেখা অংশে অবতরণের চেষ্টা করেছিল।

নাসা এ নিয়ে তাদের ওয়েবসাইটে বিস্তারিত এক বিবৃতি প্রকাশ করে চন্দ্রযানের ল্যান্ডার বিক্রমের হার্ড ল্যান্ডিংয়ের বর্ণনা দিয়েছে। তাদের একটি চন্দ্র পরিদর্শনকারী অরবিটার মিশন সে তথ্য নিশ্চিত করেছে। ছবিও প্রকাশ করেছে সংস্থাটি।

নাসা সচিত্র এক টুইট বার্তায় জানিয়েছে, ‘আমাদের লুনার রিকনেইসেন্স অরবিটার বা চন্দ্র পরিদর্শনকারী অরবিটার মিশন ভারতের চন্দ্রযান-২ এর ল্যান্ডার বিক্রম যেখানে অবতরণ করার চেষ্টা করেছিল তার ছবি তুলেছে। অন্ধকারের মধ্যে ছবিগুলো তোলা। তবে আমাদের দল বিক্রমের অবস্থান শনাক্ত করতে পারেনি।’

সংস্থাটি আরও জানিয়েছে, অন্ধকারের কারণে সেভাবে ছবি তুলতে না পারার কারণে তারা আগামী মাসে (অক্টোবরে) আলো যখন অনুকূলে থাকবে তখন ছবি তোলার চেষ্টা করা হবে। নাসার প্রকাশিত ছবিতে দেখা যাচ্ছে ল্যান্ডার বিক্রম যেখানে অবতরণের চেষ্টা করেছিল সেখানে চন্দ্রপৃষ্ঠের গর্তগুলো দেখা যাচ্ছে।

ছবিগুলো নাসার লুনার রিকনেইসেন্স অরবিটার (এলআরও) মিশন গত ১৭ সেপ্টেম্বর মহাকাশযানটির ফ্লাইবাইয়ের সময় তুলেছিল। বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগের শেষ সময়সীমা ছিল গত শনিবার। কেননা চাঁদের দক্ষিণ মেরু অঞ্চলে ওইদিন থেকেই চন্দ্ররাত্রি শুরু হয়।

বৃহস্পতিবার ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো’র প্রধান কে সিভান বলেন, ‘জাতীয় পর্যায়ের একটি কমিটি ল্যান্ডারের সঙ্গে আসলে কী ত্রুটি হয়েছে তা বিশ্লেষণ করছে। আমরা ল্যান্ডারের কাছ থেকে কোন সংকেত পাইনি। কমিটিগুলো রিপোর্ট জমা দেয়ার পর আমরা ভবিষ্যতের পরিকল্পনায় কাজ করব।

চন্দ্রযান-২ এর মূল তত্ত্বাবধান কে সিভান সংবাদসংস্থা এএনআইকে বলেন, যদিও এর জন্য প্রয়োজনীয় অনুমোদন ও অন্যান্য প্রক্রিয়া প্রয়োজন, তবে আমরা এখন এটা নিয়ে কাজ করছি। আমাদের পরবর্তী অগ্রাধিকার হলো ‘‘গগনায়ন’’ মিশন।

চন্দ্রযান-২ মিশন সফল হলে ইতিহাসের পাতায় নাম লেখাতো ভারত। ল্যান্ডার বিক্রম চন্দ্রপৃষ্ঠে অবতরণ করতে সফল হলে যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া এবং চীনের পর ভারত হতো চন্দ্রবিজয়ী চতুর্থ দেশ। পাশাপাশি প্রথম প্রচেষ্টাতেই চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে পৌঁছানো প্রথম দেশও হত ভারত।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।