Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, শনিবার ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ৩:১৬ পূর্বাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

মাওনা হাইওয়ে পুলিশের গাফিলতি:মহাসড়কে অবৈধ পার্কিং


০১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ রবিবার, ০৭:৫০  পিএম

টি আই সানি, শ্রীপুর প্রতিনিধি

বহুমাত্রিক.কম


মাওনা হাইওয়ে পুলিশের গাফিলতি:মহাসড়কে অবৈধ পার্কিং

গাজীপুর :বর্তমার সরকার জনগণের দিক চিন্তা করে যাতায়েতের সুবিদার্থে মহাসড়ক গুলো চারলেন করে দিয়েছে,যাতে মানুষের ভুগান্তি না হয়।

গাজীপুর জেলার উপর দিয়ে যাওয়া সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক। এই সড়ক দিয়ে প্রায় দিনই চলাচল করে সরকারের সবচেয়ে উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা এবং জনপ্রতিনিধিরা।

এই সড়কের উপর প্রতিনিয়ত অবৈধভাবে ট্রাক কাভার্ডভেন ঘন্টার পর ঘন্টা পার্কিং করা থাকে। এতে করে সাধারণ মানুষ এবং যানবাহন চলাচলে মারাত্মকভাবে ঝুঁকি থাকে বলে অভিযোগ চলাচলকারীদের।

এই সমস্যা দেখেও না দেখার ভান করছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বলে অভিযোগ করেন চলাচলকারীরা। এর নেই কোন প্রতিকার।

সরেজমিনে দেখা গেছে এর উল্টোটা,ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের গাজীপুর চৌরাস্তা থেকে গাজীপুরের সিমান্ত জৈনাবাজার পর্যন্ত সারিবদ্ধভাবে প্রতিদিন শত শত ট্রাক,কার্ভাডভেন অবৈধভাবে পার্কিং করে রাখে,মহাসড়ক দখল করে কিছু বালি ব্যবসায়ীরা দেদারর্সে ব্যবসা করছে।

নয়নপুর ডিবিএল কারখানার পুর্বপাশে বালি ব্যবসায়ী সোহাগ মিয়া বলেন,মাওনা হাইওয়ে পুলিশকে মেনেজ করে ব্যবসা করছি,প্রতি মাসে পুলিকে টাকা থানায় গিয়ে দিয়ে আসতে হয় । শুধু আমি একা না, নয়নপুর থেকে সালনা পর্যন্ত বালি ব্যবসায়ীরা আছে,তারা সবাই পুলিশকে মেনেজ করে ব্যবসা করছেন,পুলিশ কে প্রতিমাসে টাকা না দিলে এক ঘন্টাও ব্যবসা করতে পারবনা। মহাসড়কে উপর তেলের র্ডাম রেখে দিয়ে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী তেল চুরির ব্যবসা করছে,রাতে বিভিন্ন তেলের গাড়ি থেকে তেল বিক্রি করে সড়কের উপর দোকানিদের কাছে,তেল ব্যবসায়ীদের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক জন বলেন,মহা সড়কের উপর ব্যবসা করতে গেলে হাইওয়ে পুলিশ কে মেনেজ করেই করতে হয়। প্রতিমাসে মান্তি করা হয়েছে,প্রতিমাসে মাওনা হাইওয়ে থানায় গিয়ে টাকা দিয়ে আসতে হয়।

স্থানীয়রা ও এক পথচারি দুলাল মিয়া বলেন,পুলিশের গাফিলতি রয়েছে,দেখেও না দেখার ভান করে চোখে কাঠের চশমা লাগিয়ে ঘুরে,এবং ওই সব অবৈধ ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে টাকা নেয়,যার কারনে মহাসড়কে অবৈধ পার্কিং, এবং বালি ব্যবসায়ী,তেল ব্যবসায়ীরাসহ মহাসড়ক গেসে বিভিন্ন প্রকারের ব্যবসায়ীরা সক্রিয় হয়ে ব্যবসা করছে। মহাসড়কে এসব অবৈধ পার্কিং সড়ক দখল করে বালি ব্যবসায়ীদের কারনে প্রতিনিয়ত ঘটছে দূর্ঘনা,প্রাণ চলে যাচ্ছে অনেক নিরহ মানুষের। প্রশাসন যদি টাকার লোভ না করে,জনগনের চিন্তা করতো,তাহলে আর এরকম অবৈধ পার্কিং আর মহাসড়ক দখল থাকতনা।

মাওনা হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুঞ্জুরুল হক বলেন, মহাসড়কে এসব অবৈধ পার্কিং সড়ক দখল করে বালি ব্যবসার বিষয় কোথাও নেই,তবে যারা বালি ব্যবসা করছেন তারা তাদের জায়গাতেই করছে। তবে যদি এরকম কোথাও থাকে তাহেলে বিষটি দেখবো।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।