Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
১১ আষাঢ় ১৪২৬, বুধবার ২৬ জুন ২০১৯, ৫:৫৫ পূর্বাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

লাউয়াছড়ায় বনকর্মীদের ঘরে তালা দিয়ে আগর গাছ চুরি


১৮ মে ২০১৯ শনিবার, ১১:২৪  পিএম

নূরুল মোহাইমীন মিল্টন, নিজস্ব প্রতিবেদক

বহুমাত্রিক.কম


লাউয়াছড়ায় বনকর্মীদের ঘরে তালা দিয়ে আগর গাছ চুরি

মৌলভীবাজার: লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে আগর গাছ চোরচক্র। দশ দিনের ব্যবধানে জাতীয় উদ্যান থেকে দুটি আগর গাছ কেটে চুরির পর এবার বাঘমারা বন ক্যাম্পের বন কর্মীদের ঘরে তালা দিয়ে আটকে রেখে একটি আগরগাছ কেটে খন্ডাংশ করে নিয়ে গেছে গাছ চোরচক্র। এ সময় বাইরে থেকে গাছ চুর দল বনকর্মীদের প্রাণনাশেরও হুমকি দেয়। গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটায় কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল সড়কের ফুলবাড়ি চা বাগান সংলগ্ন বাঘমারা বন ক্যাম্প এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।

সরেজমিন খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বন ক্যাম্পে কর্মরত দুই কর্মী মোক্তার আলী (৩৮) ও আহসান হাবিব (৩৭) ও ফুল মিয়া (৪০)কে অস্ত্রের মুখে তিনটি কক্ষের ভিতরে আটকে রেখে বাইরে থেকে দরজায় তালা দিয়ে সশস্ত্র পাহারা বসায় চোরচক্র। তারপর বন ক্যম্পের পিছন থেকে প্রায় ৩ ফুট বেড়ের একটি আগর গাছ কেটে খন্ডাংশ করে নিরাপদে স্থান ত্যাগ করে। গাছ কেটে নিয়ে যাওয়ার পূর্ব মুহুূর্ত পর্যন্ত বাহিরে পাহারারত গাছচোর সদস্যরা দরজায় লাথি মেরে বনকর্মীদের নানাভাবে হুমকি দেয়।

বনকর্মী মোক্তার আলী ও আহসান হাবিব বলেন, রাত আড়াইটায় যখন সেহরীর জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি ঠিক তখনই বাইরের দরজায় জোরে আঘাত করে হুমকি দিয়ে বলে কাউকে যেন ফোন না দেওয়া হয়। অন্যতায় এখানে খুন করে যাবে। সাথে সাথে বাহির থেকে তিনটি কক্ষে তালা দেয় চোরচক্র। বনকর্মীরা আরও বলেন, আগর গাছ কাটার সময় একটি ঘরের উপর পড়লে আমরা আরও আতঙ্কিত হয়ে পড়ি।

গাছ নিয়ে চোরচক্র চলে যাবার পর রাত সাড়ে ৩টায় মৌলভীবাজারের বন্যপ্রানী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বিভাগীয় সহকারী বন সংরক্ষক আনিসুর রহমান বনকর্মী, ফরেষ্ট ভিলেজার, সিপিজি (কমিউনিটি পেট্রোরিং গ্রুপ) সদস্যদের নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। শনিবার দুপুরে বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আবু মুছা মোঃ আব্দুল মোহিত চৌধুরী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

বন্যপ্রাণি ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বিভাগীয় সহকারী বন সংরক্ষক আনিসুর রহমান তালাবদ্ধ রেখে আগর গাছ চুরির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনা যেভাবে হয়েছে তাতে বুঝা যাচ্ছে আমরা মনে হয় মধ্যযুগে রয়েছি। এ ব্যাপারে গুরুত্বসহকারে তদন্ত করা হচ্ছে এবং কারা জড়িত থাকতে পারে বিষয়েও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। উল্লেখ্য, গত ২০ এপ্রিল জাতীয় উদ্যানের মহিষমারা এলাকায় একটি ও ২৮ এপ্রিল উদ্যানের ভেতরে বন বিশ্রামাগারের সম্মুখ থেকে আরও একটি আগর গাছ চুরির ঘটনা ঘটে।

 

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।