Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
২৬ শ্রাবণ ১৪২৭, সোমবার ১০ আগস্ট ২০২০, ৯:০৩ পূর্বাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

কমলগঞ্জে হতদরিদ্রের জমি জবরদখল করে কলাবাগান


০৭ জুলাই ২০২০ মঙ্গলবার, ০১:০৪  এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক

বহুমাত্রিক.কম


কমলগঞ্জে হতদরিদ্রের জমি জবরদখল করে কলাবাগান

মৌলভীবাজার: রাতের অন্ধকারে প্রভাবশালীরা এক হতদরিদ্র নিরীহ ব্যক্তির ক্রয়কৃত জমি জবরদখল করে বেড়া দিয়ে কলাগাছ লাগিয়ে দিয়েছেন। এ ঘটনায় ওই অসহায় ভূমি মালিক কুলাউড়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। গত ২৯ জুন সোমবার দিবাগত রাতে কুলাউড়া উপজেলার কঠারকোনায় ছমর উদ্দীনের মনুনদী সংলগ্ন খরিদা ভূমিতে এ ঘটনা ঘটে।

সরেজমিনে দেখা যায়, কঠারকোন এলাকার মনু নদীর তীরঘেষা ছমর উদ্দীনের খরিদকৃত ৬০ শতক ভূমি দখল করে বাঁশের বেড়া দিয়ে কলাগাছ রোপন করেছেন একই এলাকার সমুজ আলী, আবু মিয়া, চান্দ আলী প্রমুখ ব্যক্তিরা। রাতের আঁধারে প্রতিপক্ষের প্রভাবশালীরা ওই ভূমি দখলে নেন। তবে ছমর উদ্দীন নিজের ক্রয়কৃত ভূমি রক্ষায় তাদের আপত্তি জানিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিদের অবহিত করেন। স্থানীয় ইউপি সদস্য ফরিদ উদ্দীন বিষয়টি নিয়ে দখলকার ব্যক্তিদের কাগজপত্র নিয়ে আসার অনুরোধ করলেও তারা আসেনি। এরপর ছমর উদ্দীন তার খরিদা ভূমি দখল বিষয়ে গত ৩০ জুন কুলাউড়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ করে ছমর উদ্দীন বলেন, দীর্ঘসময়কাল ধরে আমার খরিদকৃত ভূমিতে ভোগ দখলকার হিসাবে আছি। এলাকার প্রভাবশালী সমুজ মিয়া গং ব্যক্তিরা আকস্মিকভাবে রাতের আঁধারে আমার ভূমি জোরপূর্বক দখল করে কলাগাছ রোপন করেছে। বিষয়টি নিয়ে আমি উপজেলা চেয়ারম্যানসহ স্থানীয়ভাবে বিচার প্রার্থী হই। পরে থানায়ও লিখিত অভিযোগ দায়ের করি।

এব্যাপারে হাজীপুর ইউনিয়নের স্থানীয় ইউপি সদস্য ফরিদ উদ্দীন বলেন, আমি অভিযোগ পেয়ে দখলকারীদের আপত্তি জানাই এবং কাগজপত্র নিয়ে আসার জন্য অনুরোধ করি। তারা প্রথমে কাজ বন্ধ করলেও পরে ভূমি দখল করে নেয়। আমার কাছে আর আসেনি। ছোট বেলা থেকেই এই ভূমি ছমরউদ্দীনের ভোগদখল ছিল বলে তিনি জানান। অভিযোগ বিষয়ে সমুজ আলী বলেন, আমি এঘটনার সাথে মোটেও সম্পৃক্ত নই। ভূমি দখলের বিষয়েও কিছু জানিনা। ষড়যন্ত্রমূলকভাবে আমাকে মামলার আসামী করা হয়েছে।

হাজীপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বাছিত বলেন, দখলের অভিযোগ পেয়ে আমি ইউপি সদস্যকে সরেজমিনে পাঠিয়েছি। অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা কুলাউড়া থানার এসআই কানাই লাল চক্রবর্তী অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এটি সরকারী জমি এবং বালু মহাল। তবে দখল বিষয়ে সামাজিকভাবে সমাধানের প্রক্রিয়া চলছে।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

BRTA
Bay Leaf Premium Tea

অসঙ্গতি প্রতিদিন -এর সর্বশেষ