Bahumatrik Logo
২৫ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩, শনিবার ১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ৩:১৩ পূর্বাহ্ণ

শরীর বিক্রিই যদি প্রশ্ন, তবে নায়িকারা যৌনকর্মী নয় কেন?


০৯ জুন ২০১৫ মঙ্গলবার, ১২:৫৮  এএম

বহুমাত্রিক ডেস্ক


শরীর বিক্রিই যদি প্রশ্ন, তবে নায়িকারা যৌনকর্মী নয় কেন?

ঢাকা: যৌনকর্মীদের প্রশ্নে বিদ্ধ হলেন এ বার নায়িকারা৷ তাও আবার তাঁরা বিদ্ধ হলেন শরীর ইস্যুতে৷ তবে, নায়িকাদের সেই অংশকেই বিদ্ধ করেছেন যৌনকর্মীরা, যে অংশ শরীরের বিনিময়ে সিনেমায় অভিনয়ের জন্য সুযোগ করে নেয়৷

যৌনকর্মীদের প্রশ্ন, সিনেমার নায়িকা হওয়ার জন্যেও তো বিক্রি করতে হয় শরীর৷ সেক্ষেত্রে, যিনি বিক্রি করলেন শরীর, তাঁকে তো যৌনকর্মী বলা হয় না? তাঁর পরিচয় প্রদানেও তো কোনও অসম্মান অথবা রুচিহীন শব্দ ব্যবহার করা হয় না?

তা হলে, শুধুমাত্র বেঁচে থাকার জন্য শরীরের বিনিময়ে উপার্জনের ক্ষেত্রে কেন যৌনকর্মী পরিচয় পেতে হবে? কোনও কোনও ক্ষেত্রে যৌনকর্মীদের পরিচয়ে কেন ব্যবহৃত হবে রুচিহীন শব্দ (সাধারণত, যা লেখার অযোগ্য)?

সম্মানের সঙ্গে নিজেদের অধিকার আদায়ের আন্দোলনে এ বার এমনই প্রশ্ন তুলে দিলেন যৌনকর্মীরা৷ আগের তুলনায় সচেতনতা বেড়েছে সাধারণ মানুষের মধ্যে৷ বদল ঘটছে ধ্যান-ধারণায়ও৷ বদল ঘটছে যৌনতা আর যৌনসুখের রকম-ধরনের ক্ষেত্রেও৷ তা সত্ত্বেও, সমাজের বিভিন্ন অংশে এখনও যৌনকর্মীদের প্রতি নানা রকমের মনোভাবও প্রকাশ পায়৷

অথচ, ওই আদিম সুখের জন্যই আবার বিভিন্ন ক্ষেত্রে কৌতূহলও কম নেই৷ যৌনসুখের বিনিময়ে উপার্জনের বিষয়টি যাতে আইনসিদ্ধ হয়, তার জন্য দীর্ঘ বছর ধরে যৌনকর্মীদের আন্দোলন চলছে৷ ওই আন্দোলনে ক্রমে শামিল হচ্ছেন এ দেশের বিভিন্ন প্রান্তের যৌনকর্মীরা৷ আগামী দিনে এককাট্টা হয়ে জোরদার আন্দোলনের পথেও যাচ্ছেন তাঁরা৷

এ দেশের বিভিন্ন রাজ্যে রয়েছে যৌনকর্মীদের বিভিন্ন সংগঠন৷ অধিকার আদায়ের ওই আন্দোলনে যাতে প্রতিটি সংগঠনকে এককাট্টা করা যায়, তার প্রচেষ্টাও চলছে৷ আর, ওই প্রচেষ্টারই অঙ্গ হিসেবে পশ্চিমবঙ্গের যৌনকর্মীদের অন্যতম সংগঠন দুর্বার মহিলা সমন্বয় কমিটির উদ্যোগে গঠিত হয়েছে অল ইন্ডিয়া নেটওয়ার্ক অফ সেক্স ওয়ার্কার্স (এআইএনএসডব্লু)৷

গত চার এবং পাঁচ জুন, দক্ষিণ ২৪ পরগনার বারুইপুরে জাতীয় স্তরের ওই সংগঠন এআইএনএসডব্লু-র দু’দিনের সম্মেলনে অংশ নিয়েছিলেন বিভিন্ন রাজ্যের যৌনকর্মীদের বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিরা৷ যৌনপেশার বিভিন্ন সমস্যাকে কেন্দ্র করে বিস্তারিত আলোচনাও করেন তাঁরা৷ তবে, যৌনকর্মীদের সঙ্গে সিনেমার নায়িকাদের একাংশকে তুলনা করে প্রশ্নও তুলে দিয়েছেন তাঁরা৷ এই প্রসঙ্গে যে যৌনকর্মীরা যথেষ্ট ক্ষুব্ধ, তাও বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে৷

এআইএনএসডব্লু-র নতুন কমিটির যুগ্ম সচিব তথা বিহারের পূর্ণিয়ার যৌনকর্মীদের সংগঠন অম্রপালি কল্যাণ সমিতির সচিব রেখা রানি বলেন, ‘‘ফিল্মের নায়িকা হওয়ার জন্যেও তো শরীর বিক্রি করতে হয়৷ যাঁরা শরীর বিক্রি করে নায়িকা হন, তাঁদের তো সেক্স ওয়ার্কার বলা হয় না?’’ অত্যন্ত ক্ষোভের সঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘যৌনকর্মীদের পরিচয় দেওয়ার জন্য কোনও কোনও ক্ষেত্রে এমন শব্দ ব্যবহার করা হয়, যে শব্দ ওই নায়িকাদের জন্য তো ব্যবহৃত হয় না?’’

রেখা রানি বলেন, ‘‘শরীরের বিনিময়ে নায়িকা হওয়াও তো সেক্স ওয়ার্কারের মতো কাজ৷ আমরাও তো সেক্স করে উপার্জন করি৷ তা হলে, আমাদের ক্ষেত্রে কেন অন্য রকমের আচরণ করা হবে? নায়িকা হওয়ার জন্য সেক্স করতে হয়, আর আমরাও পেট চালাতে সেক্স করি৷ দুই ক্ষেত্রই তো একই রকমের৷ তা হলে কেন আমাদের প্রতি অন্য রকমের ব্যবহার করা হবে?’’ এআইএনএসডব্লু-র নতুন ওই যুগ্ম সচিব ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, ‘‘আমরা তো সেক্সের মাধ্যমে ক্লায়েন্টের দিল খুশি করে৷ সেক্স বন্ধ করে দিক সরকার, তা হলে আমাদের পেশাও বন্ধ হয়ে যাবে৷ এমনটা করতে পারবে সরকার? তা হলে করে দেখাক, দেশ থেকে সেক্স বন্ধ করে দিক৷’’

মহারাষ্ট্রের নাসিকের যৌনকর্মীদের সংগঠন দিশা মহিলা বহুউদ্দেশীয় সংগঠনের সচিব তথা এআইএনএসডব্লু-র অপর যুগ্ম সচিব লতা কাপসে বলেন, ‘‘আমার শরীর৷ এই শরীরে আমার অধিকার রয়েছে৷ তাই, আমার শরীরের বিনিময়ে যদি আমি উপার্জন করি, তা হলে কার কী সমস্যা রয়েছে?’’  তিনিও ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, ‘‘শরীর বিক্রি করে নায়িকা হলেও সেক্ষেত্রে সেক্স ওয়ার্কার বলা হয় না৷ আর, আমরা শরীরের বিনিময়ে বেঁচে থাকলেও আমাদের সেক্স ওয়ার্কার বলা হয়৷ বিভিন্ন ক্ষেত্রে আমাদের অসম্মানিত করা হয়৷’’ নাসিকের যৌনকর্মীদের ওই সংগঠনের নুরজাহান শেখ বলেন, ‘‘আদিবাসীরাও মানুষ৷ তা হলে আমরা মানুষ নই কেন? যৌনকর্মীদের প্রতি এখনও কেন অন্য রকমের আচরণ করা হয়?’’

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।