Bahumatrik Logo
 
১৫ আষাঢ় ১৪২৪, বৃহস্পতিবার ২৯ জুন ২০১৭, ১:২১ অপরাহ্ণ

কেন বারবার এই ‘মৃত্যু পরোয়ানা’ নেতাজিকে?

কেন বারবার এই ‘মৃত্যু পরোয়ানা’ নেতাজিকে?

মার্কিন গোয়েন্দা সূত্রে খবর, ১৯৬৪-র ফেব্রুয়ারিতে বোস ভারতে ফিরতে পারেন। অন্যদিকে, ১৯৪৬-এ ব্রিটিশ নথিতে জানা গিয়েছে যুদ্ধাপরাধী বোস ভারতে ফিরলে কী কী ভাবে বিচার হবে।

৭ জুন ঐতিহাসিক ‘ছয় দফা দিবস’ পালনের নেপথ্যে

৭ জুন ঐতিহাসিক ‘ছয় দফা দিবস’ পালনের নেপথ্যে

৭ জুন আমাদের মুক্তিসংগ্রামের ইতিহাসে এমনি একটি যুগান্তকারী মোড় পরিবর্তন। ৭ জুনকে এক অর্থে বলা যায় ৬ দফার দিবস। এই দিনে ৬ দফার দাবিতে বাঙ্গালী রক্ত দিতে শুরু করে।

 

 

বুধবার ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস

বুধবার ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস

এই দিনে আওয়ামী লীগের ডাকা হরতালে টঙ্গি, ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জে পুলিশ ও ইপিআর’র গুলিতে মনু মিয়া, শফিক ও শামসুল হকসহ ১০ জন বাঙালি শহীদ হন।

চা শ্রমিকদের বেদনাবিদূর ‘মুল্লুক চলো দিবস’

চা শ্রমিকদের বেদনাবিদূর ‘মুল্লুক চলো দিবস’

বিট্রিশদের নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে ১৯২১ সালের এই দিনে নিজ মুল্লুকে ফিরে যেতে চাইলে চাঁদপুরের মেঘনা ঘাঁটে পৌঁছালেই চা শ্রমিকদের হত্যা করা হয়।

শনিবার ভয়াল ২৯ এপ্রিল : ৩৮ হাজার মানুষ প্রাণ হারায় যেদিন

শনিবার ভয়াল ২৯ এপ্রিল : ৩৮ হাজার মানুষ প্রাণ হারায় যেদিন

প্রলয়ংকরি ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছাসে বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্ব চট্টগ্রাম বিভাগের উপকুলীয় অঞ্চলের প্রায় এক লাখ ৩৮ হাজার মানুষ নিহত এবং এক কোটি মানুষ তাদের সর্বস্ব হারায়।

শমশেরনগর চা বাগানে শহীদ নীরা দিবস পালন

শমশেরনগর চা বাগানে শহীদ নীরা দিবস পালন

এ আন্দোলনের নেতৃত্ব দেন চা শ্রমিক নেতা মফিজ আলীসহ চা বাগানের প্রবীন নেতৃবৃন্দ। পুলিশের গুলিতে নীরা বাউরীর মৃত্যুর পর আন্দোলন জোরালো হয়ে উঠে।

ঝিনাইদহে ইলা মিত্রের পৈত্রিক বাড়ি সংরক্ষণের উদ্যোগ

ঝিনাইদহে ইলা মিত্রের পৈত্রিক বাড়ি সংরক্ষণের উদ্যোগ

পুরাকীর্তি ও প্রত্নতত্ব সম্পদ হিসেবে বাড়িটি সংরক্ষণের জন্য সরকারের সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

শৈলকুপায় বঙ্গবন্ধুর এক রাত কাটানো সেই বাড়ি

শৈলকুপায় বঙ্গবন্ধুর এক রাত কাটানো সেই বাড়ি

দীর্ঘ ছয় দশক ধরে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বহন করে চলেছে শৈলকুপা উপজেলার বাখরবা গ্রামের একটি ঘর।

শেখ মুজিবের ৭ই মার্চের ভাষণের নেপথ্যে

শেখ মুজিবের ৭ই মার্চের ভাষণের নেপথ্যে

৭ই মার্চের ভাষণে শেখ মুজিব সেদিন দুটো উদ্দেশ্য অর্জন করতে চেয়েছিলেন - একদিকে মানুষের কাছে স্বাধীনতার বার্তা পৌছে দেয়া, একইসাথে বিচ্ছিন্নতাবাদীর তকমা পরিহার করা।

৭ মার্চের পর গণমাধ্যমে বলা হয় ‘পাকিস্তানের অখন্ডতা থাকছে না’

৭ মার্চের পর গণমাধ্যমে বলা হয় ‘পাকিস্তানের অখন্ডতা থাকছে না’

বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের মাত্র একদিন পরে একাত্তরের ৮ মার্চ লন্ডনের ‘দ্যা ডেইলী টেলিগ্রাফ’ পত্রিকায় প্রকাশিত ‘পুরাতন পাকিস্তানের ইতি’ শিরোনামে একটি রির্পোট করেন সাংবাদিক ডেভিড লুসাক ।