Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
১৭ ফাল্গুন ১৪২৭, সোমবার ০১ মার্চ ২০২১, ৭:৪৪ অপরাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

শরীফপুর সীমান্তে বাড়ছে মাদক চোরাচালান, নারীসহ আটক ২


২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১ শনিবার, ০৯:৩৫  পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক

বহুমাত্রিক.কম


শরীফপুর সীমান্তে বাড়ছে মাদক চোরাচালান, নারীসহ আটক ২

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার শরীফপুর সীমান্তে বেড়েই চলেছে মাদক চোরাচালান। সীমান্তের ওপার থেকে আসা ভারতীয় মদ ও চা বাগানের উৎপাদিত দেশীয় মদে সয়লাব হয়ে পড়ছে। শনিবার র‌্যাব ও পুলিশের পৃথক অভিযানে ২৮১ বোতল ভারতীয় মদ ও নগদ ২ লাখ ৩৪ হাজার টাকা, চা বাগানের ১০৩ লিটার মদ ও ২০ লিটার মদ তৈরীর উপকরণ ও নারীসহ ২ জনকে আটক করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, শরীফপুর সীমান্তে প্রতিদিন ভোরে ও মাঝ রাতে বিভিন্ন ফাঁড়ি সড়ক দিয়ে ভারতীয় মদ, ইয়াবা, ফেনসিডিল ও ভারতীয় নিষিদ্ধ বিড়ি বাংলাদেশে প্রবেশ করে। শরীফপুর, চাতলাপুর চা বাগান সহ বিভিন্ন স্থানে রেখে ব্যবসায়ীরা ভাগবন্টন করে অন্যত্র নিয়ে যান। দীর্ঘদিন ধরে এভাবে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে মাদক চোরাচালানীরা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন। মাদক চোরাচালানীরা একটি সিন্ডিকেট ও সশস্ত্র দল থাকায় ভয়ে কেউ প্রতিবাদ করেন না। স্থানীয় কয়েকটি রোড ব্যবহার করে তারা চোরাচালান ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর বিষয়টি জানা থাকলেও রহস্যজনক কারণে নির্বিকার। তবে মাঝে মধ্যে র‌্যাব, বিজিবি ও পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে।

চা বাগানে কোন কোন বৈধ মদের পাট্টা থাকলেও অবৈধ মদ তৈরীর কারখানা রয়েছে অসংখ্য। শ্রমিকদের বাসাবাড়িতে চুলায় এসব মদ তৈরি করার পর বিক্রি করা হয়। চা বাগানের বিভিন্ন লাইনের শ্রমিকদের বাসায় এভাবে প্রতিদিন মদ তৈরী হয়। বাগানে তৈরি মদকে ‘চোলাই’ ও ‘হাড়িয়া’ মদ নামে পরিচিত। কাজ থেকে ফিরে শ্রমিকরা সন্ধ্যায় বেশি পরিমাণে মদ পান করেন। বর্তমানে চা বাগানের কিছু যুব সমাজ ও নারীরাও মদ পানে আসক্ত হচ্ছে। বস্তির কিছু লোকেরাও বাগানে এসে মদ পান করে থাকে। এসব মদ বিভিন্ন স্থানে পাচার ও বিক্রি করা হয়।

র‌্যাব-৯ সিপিসি-২ শ্রীমঙ্গল ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার ভোর সাড়ে ৫টায় কুলাউড়া উপজেলার শরীফপুরের ইটারঘাট গ্রামে র‌্যাব-৯ সিপিসি-২ শ্রীমঙ্গল এর একটি চৌকষ দল অভিযান চালায়। ইটারঘাট গ্রামের ওয়াতির মিয়ার ছেলে মঞ্জুর এলাহী (৪১) এর বসত ঘর থেকে ২৮১ বোতল ভারতীয় মদ ও মাদক বিক্রির ২ লাখ ৩৪ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। এসময় ওয়াতির মিয়াকে আটক করা হয়।

এ ঘটনায় র‌্যাব-৯ সিপিসি-২ শ্রীমঙ্গল ক্যাম্পের পক্ষে কুলাউড়া থানায় মামলা করা হয়। র‌্যাব-৯ শ্রীমঙ্গল ক্যাম্পের পিএসসি, এএসসি মেজর আহমেদ নোমান জাকি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর কানিহাটি চা বাগানের অফিস লাইনের আনন্দ মৃধার ঘরে তল্লাশি চালায়। এ সময় তার ঘর থেকে ১০৩ লিটার দেশীয় মদ ও ২০ লিটার ওয়াশ (মদ তৈরীর উপকরণ)সহ আনন্দ মৃধার স্ত্রী স্বরসতি মৃধা (৪০) কে আটক করে।

কমলগঞ্জের শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মো. শাহ আলম সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, কানিহাটি চা বাগানে স্বরসতি মৃধার ঘরে অভিযান চালিয়ে ১০৩ লিটার তৈরী মদ ও মদ তৈরীর উপকরণ ২০ লিটার ওয়াশ উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত মদ জব্দ করে স্বরসতি মৃধাকে আটক করে পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে আসা হয়। এ ঘটনায় মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করে আটক নারীকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করা হবে।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।