Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
২৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৮, মঙ্গলবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ৩:০১ অপরাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

ঐতিহ্যবাহী বর্ষবিদায় ও বর্ষবরণ উৎসবে মতোয়ারা মাগুরছড়ার খাসিয়ারা


২৪ নভেম্বর ২০২১ বুধবার, ১০:৩৫  পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক

বহুমাত্রিক.কম


ঐতিহ্যবাহী বর্ষবিদায় ও বর্ষবরণ উৎসবে মতোয়ারা মাগুরছড়ার খাসিয়ারা

মৌলভীবাজার : খাসিয়া সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী বর্ষ বিদায় ও বর্ষবরণ অনুষ্ঠান  মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও কমলগঞ্জ উপজেলার মাগুরছড়া খাসিয়া পুঞ্জিতে খাসিয়া সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী বর্ষবিদায় ও বর্ষবরণ অনুষ্ঠিত হয়। মাগুরছড়া পুঞ্জির ইয়ুথ ক্লাবের উদ্যোগে এ উৎসব শুরু হয়। সকাল ১০ টায় শুরু হলেও মূল পর্ব শুরু হয় বেলা ২টায়। খাসিয়া আদিবাসী ভাষায় এ অনুষ্ঠানটি হচ্ছে ‘খাসি সেং কুটস্নেম’ (Khasi Seng Kutsnem)।

বৃহত্তর সিলেট আদিবাসী ফোরামের সভাপতি জিডিসন প্রধান সুচিয়াঙ এর সভাপতিত্বে ও লাউয়াছড়া খাসিয়া পুঞ্জি প্রধান ফিলা পত্মীর সঞ্চালনায় আলোচনা পর্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মণিপুরী সমাজ কল্যাণ পরিষদের সভাপতি আনন্দ মোহন সিংহ। আলোচক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক ও কথাসাহিত্যিক আকমল হোসেন নিপু, চা শ্রমিক নেতা পরিমল বাড়াইক প্রমুখ।
বহু ভাষাভাষী ও বৈচিত্র্যে সমৃদ্ধ মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় অন্যতম একটি সম্প্রদায় খাসিয়া। যাদের মূল জীবিকা পাহাড়ে পান চাষাবাদ। তাদের রয়েছে বৈচিত্র্যময় জীবনগাঁথা।

মৌলভীবাজারের খাসিয়ারা মূলত সিনতেং গোত্রভুক্ত জাতি। ভাত ও মাছ তাদের প্রধান খাদ্য। তারা মাতৃপ্রধান পরিবারে বসবাস করে। তাদের মধ্যে কাচা সুপারি ও পান খাওয়ার প্রচলনও বেশি।
জানা যায়, সেং কুটস্নেম বা বর্ষ বিদায় খাসিয়াদের একটি সার্বজনীন উৎসব। প্রাচীন খাসিয়া সমাজে দেবতার প্রতি সন্তুষ্টি প্রকাশের মধ্য দিয়েই এ উৎসব পালিত হত। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও উপজেলার মাগুরছড়া পুঞ্জির খেলার মাঠে নানা সমাহারে এ উৎসব উদযাপিত হয়।

খাসিয়াদের বর্ষ বিদায় ও বর্ষ বরণ উৎসব উপলক্ষে খাসি জনগোষ্ঠীর লোকজনের মধ্যে উৎসবের আমেজ বিরাজ দেখা দেয়। বর্ষবরণ ও বিদায় অনুষ্ঠানে খাসিয়ারা তাদের প্রাচীন ইতিহাস ও ঐতিহ্যবাহী পোশাক পরিধান করে আদি পাহাড়ি নৃত্য ও গান পরিবেশন করে। পাশাপাশি তাদের জীবিকার প্রধান উৎসব জুম চাষের এবং জীবন-জীবিকার বিভিন্ন পদ্ধতি নৃত্যের মাধ্যমে তুলে ধরে। উৎসব উপলক্ষে খাসি সোশ্যাল কাউন্সিল বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে। সেং কুটস্নেম উৎসবের দিনব্যাপী সবাই মিলে পুকুরে মাছ শিকার, ঐতিহ্যগত খেলাধুলা, ঐতিহ্যগত পোষাক পরিধান, সাংস্কৃতিক পরিবেশনাসহ ঐতিহ্যবাহী খাবার খেয়ে তারা আনন্দ ফুর্তি করে নিজেদের সামাজিক সম্পর্কে সুদৃঢ় করতে অঙ্গীকারবদ্ধ হন। ফুটবল মাঠের একপ্রান্তে বাঁশের খুঁটির উপর প্রাকৃতিক পরিবেশে নারিকেল গাছের পাতার দিয়ে ছাউনী দিয়ে আলোচনা সভার মঞ্চ তৈরি করা হয়।

২৩ নভেম্বর মাগুরছড়া পুঞ্জির মাঠে বসে ঐতিহ্যগত ৩০টি স্টলের মেলা। মেলায় খাসি জনগোষ্ঠীর লোকেরা বাহারী পণ্যের পসরা নিয়ে বসেন। বিভিন্ন স্টলে খাসিয়াদের ঐতিহ্যবাহী পোশাক, পান, মশলা, তীর-ধনুকসহ বাঁশ বেতের জিনিসপত্র সাজিয়ে রাখা হয়। খাসিয়া তরুণ প্রজন্মের পাশাপাশি, বাংলাদেশে খাসিয়াদের প্রাচীন ইতিহাস ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি ও পরিচয় করিয়ে দেওয়ার জন্য বর্ষ বরণ ও বিদায় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বৃহত্তর সিলেটে প্রায় ৭০ টি খাসিয়া পুঞ্জির খাসিয়ারা মাগুরছড়া খাসিয়া পুঞ্জির খাসি সেং কুটস্নেম অর্থাৎ বর্ষ বরণ ও বিদায় অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। তাদের এই বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে বাঙালি ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষসহ দেশী-বিদেশী পর্যটকরা অংশগ্রহণ করে থাকেন। তবে মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রাদুভার্বের কারণে ২০২০ সালে তাদের ঐতিহ্যবাহী এই অনুষ্ঠান খাসি সেং কুটস্নেম উদযাপিত হয়নি।

মাগুরছড়া পুঞ্জির মন্ত্রী ও খাসি সোশ্যাল কাউন্সিল এর সভাপতি জিডিশন প্রধান সুচিয়াং জানান, খাসি সেং কুটস্নেম উপলক্ষে এখানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যেসব অতিথিরা আসেন তাঁদের সংবর্ধনা ও কথা বলার সুযোগ দেয়া হয়। উৎসবে বিশেষ কাউকে আনুষ্ঠানিভাবে অতিথি করা হয় না। যারা উৎসবে যোগ দেন তাদের সবাইকে খাসি সেং কুটস্নেম উৎসবের অতিথি হিসেবে গণ্য করা হয়।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

BRTA
Bay Leaf Premium Tea

শিল্প-সংস্কৃতি -এর সর্বশেষ