Bahumatrik | বহুমাত্রিক

সরকার নিবন্ধিত বিশেষায়িত অনলাইন গণমাধ্যম

বৈশাখ ৬ ১৪৩১, শনিবার ২০ এপ্রিল ২০২৪

ইংরেজির বেড়াজালে বেঁচে থাকবে তো বাংলা ভাষা?

তারেক আহমেদ

প্রকাশিত: ২০:০৮, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

প্রিন্ট:

ইংরেজির বেড়াজালে বেঁচে থাকবে তো বাংলা ভাষা?

ফাইল ছবি

প্রত্যেকটি বাবা-মা চায় তার সন্তান ইংলিশ মিডিয়ামে পড়ুক। এ যেন পশ্চিমা সংস্কৃতি এবং ভাষা চর্চার এক অবাধ গলাধঃকরণের  প্রতিযোগিতা চলছে। বাংলা ভাষাভাষীগণ, রাজধানী ঢাকা থেকে কলকাতার সল্টলেক পর্যন্ত এখানে উচ্চবিত্ত পরিবারের সন্তানেরা বাংলা আর বলে কই! তাদের সন্তানেরা বাংলা ছেড়ে যখন ইংরেজি বলে, গর্বে তখন তাদের বাবা-মায়ের বুক ভরে যাওয়ার উপক্রম। এ বাতাস তো মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্তেরও লেগে গেছে, তারা কেনো পিছিয়ে থাকবে।

প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শ্রেনীকক্ষ পর্যন্ত ইংরেজিকে যেভাবে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে, এতে কি হুমকির মুখে ফেলে দেওয়া হচ্ছে না আমাদের সাধের বাংলাকে?

শুদ্ধ বাংলা ভাষা এখন কি আদৌও শুদ্ধ আছে? দু'একটি বাংলা এবং দু'একটি ইংরেজির সংমিশ্রণে কি এক জগাখিচুরি হচ্ছে তা আমাদের অজানা নয়। সবচেয়ে ভয়ানক বিষয় বাংলা আবার দখল নিচ্ছে এক অজানা ইংরেজি কোম্পানি। যাতে দখল হতে যাচ্ছে পুরো বাংলাভাষা। এবার রক্ত দিবে আমাদের সাধের 'অ-আ-ক-খ'।

প্রতিবছর ভাষার মাস এলেই কোনো এক অদৃশ্য সমবেত ধ্বনিতে 'বাঁচাও বাঁচাও' বলে অভিযোগের পাহাড় নিয়ে, বায়ান্নর ভাষা সৈনিক খুঁজে বেড়ায় আমাদের সাধের বাংলা। যারা হারিয়ে গেছে কালের গর্ভে।

তৎকালীন জগন্নাথ কলেজের (বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়) রফিক, ঢাকা মেডিকেল কলেজের আবদুল জব্বার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবুল বরকত, ঢাকা হাইকোর্টের হিসাব রক্ষক শফিউর রহমানসহ আব্দুস সালাম, অহিউল্লাহ'র রক্তের সাথে রীতিমতো বেঈমানি কিভাবে মেনে নিচ্ছে এ সমসাময়িক বুদ্ধিজীবীরা। কারণ তাদের অনেকেরই সন্তানেরা উচ্চশিক্ষার আশায় পশ্চিমা বিশ্বের কোনো এক নামকরা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। উচ্চশিক্ষা নিয়ে আমাদের মাথাব্যথা নেই। উচ্চশিক্ষা গ্রহণ শেষে পশ্চিমা সংস্কৃতি কাঁধে করে নিয়ে এসে বাংলার উপর চাপিয়ে দেওয়া কি দেশদ্রোহিতার কাতারে পরে না— প্রশ্ন থেকেই যায়?

আন্তর্জাতিক ভাষাগত দিক থেকে ইংরেজির প্রয়োজনীয়তা আছে তা অস্বীকার করা যায় না। যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে ইংরেজির ব্যাবহার করা যেতেই পারে। তা যোগাযোগের মাধ্যম পর্যন্তই সীমাবদ্ধ থাকা প্রয়োজন। শীতপ্রধান দেশে ঠান্ডা আটকানোর জন্য পশ্চিমারা শুরু করেছিলেন গলায় টাই বাঁধা। এদিকে পশ্চিমাদের অনুসরণ করতে গিয়ে  নাতিশীতোষ্ণ জলবায়ুর দেশে তীব্র তাপমাত্রায় পশ্চিমা পোশাক পরিধান করে, গলায় টাই লাগিয়ে উপস্থাপনা, মৌখিক পরীক্ষা, আলোচনা সভায় অংশগ্রহণ করছি। এগুলো যে হাস্যরসে পরিণত হয়েছে, তা কি বোঝার উপায় আছে? বাঙালি সংস্কৃতির ধুতি, পাঞ্জাবি, লুঙ্গি, ফতুয়া পরিধান করে এসকল স্থানে যাওয়াটা আমরা কল্পনাও কি করতে পারি। পশ্চিমা পোশাক, সংস্কৃতি ও ভাষার সাথে শেষ পর্যন্ত টিকে থাকবে তো বাংলা! আন্তর্জাতিক যোগাযোগের প্রয়োজনীয়তা আছে বলেই এই নয় যে পুরো বাংলাকে ইংরেজি বানিয়ে ফেলবো।

২০১৮ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি, এথ্‌নোলগের ২১তম সংস্করণ প্রকাশিত হয়েছে। সেখানে বিশ্বের মোট ভাষার সংখ্যা প্রকাশ হয়েছে ৭০৯৭টি, বিলুপ্তির পথে যাচ্ছে এমন ভাষা রয়েছে ৯২২টি। এত হাজারো ভাষার ভিড়ে বাংলা একমাত্র ভাষা, যা রক্ষার জন্য প্রাণ দিতে হয়েছিলো বাঙালির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের। রক্তের বিনিময়ে অর্জিত ভাষা নিয়ে এমন ছেলেখেলা কিভাবে মেনে নেওয়া যায়, তা কল্পনাতীত!

শত-শত কোটি টাকা খরচ করে ইংরেজি মিডিয়াম না বানিয়ে বাংলা পাঠশালায় শুদ্ধ বাংলা শিখি। সমৃদ্ধ ভাষা, সাহিত্য, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যে মাতৃভাষার ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে বাংলা বলি। শিক্ষা, বিজ্ঞান, প্রশাসনিকসহ সকল গুরুত্বপূর্ণ কাজে বাংলার যথাযথ ব্যাবহার নিশ্চিত করি। ইন্দো-ইউরোপীয় থেকে বাংলা ভাষার এ দীর্ঘযাত্রা পথে একটু দাঁড়িয়ে আসুন গর্ব করে, শিরদাঁড়া উঁচু করে বলি "আমি বাঙালি, আমার মাতৃভাষা বাংলা।"

শিক্ষার্থী, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়
ই-মেইল: [email protected]

Walton Refrigerator Freezer
Walton Refrigerator Freezer