Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
২৭ আষাঢ় ১৪২৭, রবিবার ১২ জুলাই ২০২০, ১২:০৬ পূর্বাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

শহীদ মিনারবিহীন আক্কেলপুরে অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান


১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ বুধবার, ১১:৪২  পিএম

মওদুদ আহম্মেদ, আক্কেলপুর প্রতিনিধি

বহুমাত্রিক.কম


শহীদ মিনারবিহীন আক্কেলপুরে অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

জয়পুরহাট: “মোদের গরব মোদের আশা আ মরি বাংলা ভাষা”-এই বাংলা ভাষার জন্যই ১৯৫২ সালে বাংলার দামাল ছেলেরা বুকের তাজা রক্ত দিয়ে বাংলা ভাষাকে মায়ের ভাষা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছিল।

প্রতি বছর ২১ ফেব্রুয়ারি আসলে বাঙালি জাতি শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ এবং নানা আয়োজনের মাধ্যমে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এ দিবসে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করার কথা। অথচ জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে বেশির ভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নেই কোন শহীদ মিনার। ফলে ভাষা আন্দোলনসহ মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নতুন প্রজন্মের কাছে অজানা থেকে যাচ্ছে।

উপজেলা মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, মোট ১০৬ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আছে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ৬৯ টি, মাধ্যমিক বিদ্যালয় ২০ টি, মাদ্রাসা ১০ টি, কলেজ ০৭ টি। এর মধ্যে ৩১ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার আছে তারা বিভিন্ন জাতীয় দিসবসহ সভা সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পালন করে থাকে।

উপজেলার বাকি প্রতিষ্ঠানগুলোতে নেই শহীদদের সম্মান জানানোর শহীদ মিনার। সেই সাথে উপজেলায় যে সকল নিবন্ধিত ও অনিবন্ধিত কিন্ডার গার্ডেন স্কুল রয়েছে তাদের নেই কোন শহীদ মিনার এবং কোন সরকারি অনুষ্ঠানে তাদের অংশগ্রহণ চোখে পড়ে না।

এ বিষয়ে গণিপুর জাফরপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আজিজুল হক ইমাম জানান, আমার স্কুলের নতুন ভবন তৈরি করার জন্য আগের শহীদ মিনারটি ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। মহান একুশে ফেব্রুয়ারি পালন করার জন্য অস্থায়ী ভাবে একটি শহীদ মিনার তৈরি করা হবে।

আক্কেলপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বলেন, আমার প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নেই। আমার উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো হবে এবং দ্রুত সময়ের মধ্যে শহীদ মিনার নির্মাণ করা হবে।

এ ব্যাপারে উপজেলার সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডা নবিবর রহমান জানান, আমাদের উপজেলায় অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নেই। যার ফলে নতুন প্রজন্ম মাতৃভাষা সম্পর্কে সঠিক ইতিহাস জানছে না। আমি প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নিমার্ণের জন্য দাবি জানাচ্ছি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জাকিউল ইসলাম জানান, যে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নেই সেই সব প্রতিষ্ঠানের তালিকা শিক্ষা অফিসের মাধ্যমে নেওয়া হবে এবং এ তালিকাটা নিয়ে মাসিক সমন্বয় সভায় আলোচনা করা হবে। সেই সাথে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

BRTA
Bay Leaf Premium Tea

অসঙ্গতি প্রতিদিন -এর সর্বশেষ