Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
২২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬, শুক্রবার ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:৫৩ অপরাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

পুকুরের পাড়ে সবজি চাষ


০৮ অক্টোবর ২০১৯ মঙ্গলবার, ০৮:২৯  পিএম

ড. মো. হুমায়ুন কবীর

বহুমাত্রিক.কম


পুকুরের পাড়ে সবজি চাষ

 

বাংলাদেশে মাছ চাষ এখন খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও লাভজনক জীবিকা। মাছ চাষের যে বিভিন্ন স্থান রয়েছে তার অন্যতম হলো পুকুর খনন করা। বাংলাদেশ বিশ্বে মিঠাপানির মাছ উৎপাদনে চতুর্থ। সেজন্য মাছ চাষ এখন একটি লাভজনক বাণিজ্যে পরিণত হয়েছে। মাছ চাষের উদ্দেশ্যে গ্রামে-গঞ্জে এখন ফসলী জমির উপর পুকুর খনন করে তাকে মাছ চাষের আওতায় নিয়ে আসা হচ্ছে। সেজন্য একদিকে মাছের উৎপাদন বাড়িয়ে পুষ্টির যোগান দেওয়া যেমন জরুরি, তেমনি ফসলী জমি আবদ্ধ করে সেখানে পুকুর খনন করাও কৃষি জমি কমে গিয়ে ফসলের উৎপাদন ব্যাহত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। সেজন্য খনন করা পুকুরের পাড়কেও এখন সবজি চাষের ক্ষেত্র হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে।

পুকুরের পাড়ে বিভিন্ন ধরনের ফসল, ফল, গাছ-গাছরা রোপণের সুযোগ থাকলেও সেখানে সারাবছর নানারকমের মৌসুমী শাক-সবজি উৎপাদন করা সম্ভব। তাতে জমির সদ্ব্যবহার, কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও বাড়তি আয়ের সুযোগ সৃষ্টি হয়। আর পুষ্টির যোগানের বিষয়টি তো রয়েছেই। আগেই বলেছি বিশ্বে স্বাদু পানির মাছ উৎপাদনে বাংলাদেশ যেমন চতুর্থ ঠিক তেমনি শাক-সবজি উৎপাদনে বিশ্বে বাংলাদেশ তৃতীয়। তাছাড়া আরেকটি পরিসংখ্যান আমার আজকের এ প্রবন্ধের সাথে খুবই গুরুত্বপূর্ণ আর সেটি হচ্ছে শাক-সবজি আবাদের জমির পরিমাণ বৃদ্ধি সংক্রান্ত। অর্থাৎ বিশ্বে শাক-সবজির জমির পরিমাণ বৃদ্ধিতে বাংলাদেশ প্রথম। কাজেই পুকুরে মাছ চাষ এবং তার পাড়ে সবজি চাষের জায়গা বানানো সেই উদ্যোগেরই একটি অংশ।

পুকুরের পাড়ে আসলে সারাবছরই কিছু না কিছু শাক-সবজির আবাদ করা সম্ভব। তারমধ্যে কিছু থাকতে পারে স্থায়ী এবং কিছু হতে পারে মৌসুমী। সাংবাৎসরিক বা স্থায়ীগুলোর মধ্যে আনাজি কাঁচ কলা, কাঁচা পেপে ইত্যাদি। অপরদিকে মৌসুমীগুলোর মধ্যে লাউ, সীম, পটল, ঝিঙ্গা, চিচিঙ্গা, শশা, করলা, লালশাক, ডাটা, ঢেঁড়শ, টমেটো, মিষ্টিকুমড়া, চাল কুমড়া, কলমিশাক, পুঁইশাক, মিষ্টিআলু শাক ইত্যাদি। মসলার মধ্যে আদা, হলুদ, রসুন, পেঁয়াজ, ধনিয়া পাতা, পুদিনা পাতা ইত্যাদি। ডালের মধ্যে রয়েছে খেসারি, মাসকলাই, মটর ইত্যাদি। এসব শাক-সবজি কিংবা ডাল-মসলার সবগুলোই আবার শাক-সবজি হিসেবে ব্যবহার করা যায়।

এসব ফসলের এক বা একাধিক একইসাথে অথবা সাথী বা আন্তফসল হিসেবে আবাদ করা সম্ভব। একটি ছোট, বড় কিংবা মাঝারি আকারের পুকুরের পাড়ে সবজি ফলিয়ে পারিবারিক প্রয়োজন মিটিয়ে বাণিজ্যিকভাবে লাভবান হওয়া সম্ভব। পুকুরের পাড়ে এসব সবজি চাষ করার জন্য খুব একটা জমি প্রস্তুতের প্রয়োজন হয়না। কোদাল কিংবা খুরপি দিয়েই পুকুরের পাড়ের জমি প্রস্তত করে নেওয়া যায়। বৈজ্ঞানিকভাবে মাছ চাষের জন্য প্রতিবছর মাছ তুলে ফেলার পর পুকুর সাময়িক সংস্কার করার প্রয়োজন পড়ে। তাই প্রতিবারেই পুকুর সংস্কারকালে নতুন মাটি উঠানো হয়। সেই মাটি খুবই উর্বর হয়ে থাকে। কারণ মাছের খাবার হিসেবে যেসব জিনিস দেওয়া হয় সেগুলোর বেশিরভাগই পুকুরের তলানিতে জমা পড়ে। সেই তলানি নিচের মাটির সাথে মিশে গিয়ে গাছের জন্য পুষ্টিকর জৈবসারে রূপ নেয়।

অপরদিকে নতুন খননকৃত পুকুরের মাটিও শাক-সবজি চাষের জন্য খুবই উপযোগি। নতুন মাটি অথবা সংস্কারকৃত পুকুরের জৈবসারযুক্ত মাটিতে অত্যন্ত ভালোভাবেই শাক-সবজি উৎপাদন করা হয়ে থাকে। পুকুরের পাড়টিকে কয়েকটি ধাপে ভাগও করে নেওয়া যেতে পারে। তাতে একেক ভাগে একেকটি সবজি ফসল আবাদ করা যেতে পারে। আবার লাউ, সীম, চালকুমড়া, মিষ্টিকুমড়া, পটল, করলা, পুঁইশাক, ইত্যাদি বাঁশের তৈরি মাচা অথবা মাটিতে বিছিয়ে দু-ভাবেই আবাদ করা যেতে পারে। তবে মাটিতে বিছিয়ে দিলে সেক্ষেত্রে ধানের নাড়া বা খড় কিংবা পাটশোলা বিছিয়ে দেওয়া যেতে পারে। অপরদিকে অন্যান্য সবজি ফসলগুলোর কোনটি বীজ মাটিতে পুতে দিয়ে আবার কোনটির বীজ মাটিতে ছিটিয়ে দিয়ে বপন করা যেতে পারে।

যেভাবেই আবাদ করা হোক না কেন পুকুরের পাড়ে সবজি চাষের ফলে সেখানে যথেষ্ট উঁচু থাকার কারণে প্রাকৃতিক দুর্যোগে তা কম নষ্ট হওয়ার সম্ভবনা থাকে। অপরদিকে সারাবছরই সেখান থেকে কিছুনা কিছু শাক-সবজি ফলানো সম্ভব। তাতে পারিবারিক সবজির চাহিদা মেটানো যায়। আমরা জানি একজন সুস্থ স্বাভাবিক পুর্ণবয়স্ক মানুষের দৈনিক গড়ে ২৫০ গ্রাম শাক-সবজি গ্রহণ করা প্রয়োজন হয়। তাছাড়া মানুষের শরীরের প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদানের একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অবশ্যই শাক-সবজি থেকে আসা বাঞ্ছণীয়। কাজেই মোট দেশজ শাক-সবজির উৎপাদন বাড়ানোতে পুকুরের পাড়কে অবশ্যই গুরুত্ব দিতে হবে। কারণ আমাদের দেশে বর্তমানে জনসংখ্যা বৃদ্ধির জন্য আবাদের জমি দিনদিনই কমে যাচ্ছে। কাজেই এভাবে আবাদের ক্ষেত্র বৃদ্ধির কোন বিকল্প নেই।

লেখক: কৃষিবিদ ও ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়
email: [email protected] 

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।