Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
৮ কার্তিক ১৪২৬, বুধবার ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ৫:২৫ অপরাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

সৌভাগ্যবান এরশাদ, দুর্ভাগা এরশাদ


১৬ জুলাই ২০১৯ মঙ্গলবার, ১২:৩২  এএম

মাসুদুল হক

বহুমাত্রিক.কম


সৌভাগ্যবান এরশাদ, দুর্ভাগা এরশাদ

স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে- এটাই সাবেক প্রেসিডেন্ট এইচ এম এরশাদের জন্য সৌভাগ্যের বিষয় । একটি নির্বাচিত সরকারকে হটিয়ে টানা ৯ বছর ক্ষমতায় থেকেছেন। পরে গণঅভ্যুত্থানের মাধ্যমে তার সরকারের পতন ঘটেছে। কয়েক বছর জেল খেটেছেন সত্য কিন্তু পুনরায় রাজনীতিতে ফিরে এসেছেন নিয়ামক শক্তি হিসেবে।

এখানেই জেনারেল এরশাদ ইতিহাসের অনেক চরিত্র থেকে আলাদা। এক কথায় বললে সৌভাগ্যবান। এই গোলার্ধের ইতিহাস বলে- গণঅভ্যুত্থানে পরাজিত শক্তির পরিনতি হয় ভয়ানক। এরশাদের খারাপ পরিণতি দূরে থাক, বড় দুই দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি বিভিন্ন সময় এরশাদকে ব্যবহার করেছেন ক্ষমতায় যাওয়ার সিঁড়ি হিসাবে। বিনিময় হিসেবে বিভিন্ন মামলা থেকে রেহাই দিয়েছেন। শেষ পর্যন্ত জেনারেল মঞ্জুর হত্যা মামলার ছাড়া এরশাদের বিরুদ্ধে উল্লেখযোগ্য বিচারাধীন কোনো মামলা ছিল না।

শেখ হাসিনার শাসনামলের পুরোটাই এরশাদকে ইচ্ছায় হোক অনিচ্ছায় হোক সরকারের সঙ্গে থাকতে হয়েছে। এরশাদ নড়াচড়া করলে সরকার তার স্ত্রী রওশন এরশাদকে সামনে এনেছেন। দিশেহারা এরশাদ সকালে এক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তো বিকেলে উল্টোটা। জনগণের সামনে নিজেকে খেলো করেছেন, হাস্যরসের খোরাক হয়েছেন। বেশি `বিপ্লবী` হওয়ার চেষ্টা করলে তাকে সোজা (বল পূর্বক) হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে ।

এরশাদের শাসনামল:

বড় দুটি রাজনৈতিক দলের পারস্পরিক অবিশ্বাস তিক্ততা এরশাদের শাসনামলকে প্রলম্বিত করেছে। তাছাড়া এরশাদ বিভিন্ন সময় নানা কূটকৌশল অবলম্বন করে টিকে গেছেন। বিরোধী দল ভাঙ্গা, নেতা ভাগিয়ে নেওয়া, অবিশ্বাস ঢুকানো-সকল অপকৌশলই সারা বছর চালিয়ে গেছেন।

স্টানবাজি…

স্টানবাজিতে তিনি বেশ মুন্সিয়ানার পরিচয় দিয়েছেন। শুক্রবার জুমার নামাজের সময় তিনি রাজধানী বা অন্য কোন জেলা শহরের মসজিদে হঠাৎ উপস্থিত হয়ে যেতেন। আচমকা রাষ্ট্রপতিকে দেখে মুসুল্লিরা তো হতচকিয়ে যেতেন। এরশাদ মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে বলতেন ` গতরাতে দেখা স্বপ্নে আদিষ্ট হয়ে তিনি এই মসজিদে নামাজ আদায় করতে এসেছেন`।

ভোটের কথা মাথায় রেখে তিনি আচমকা ইসলামকে রাষ্ট্রীয় ধর্ম ঘোষণা করেন। অথচ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছিল `ধর্ম যার যার, রাষ্ট্র সবার`। এরশাদ ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান কতটুকু পালন করতেন বিতর্ক আছে। কিন্তু ধর্মীয় আবেগ উস্কে দিতে পারঙ্গম ছিলেন। ভারতে বাবরি মসজিদ ভাঙ্গার প্রতিক্রিয়া এদেশে যে টুকু হয়েছিল তাতে রাষ্ট্রীয় (এরশাদের) পৃষ্ঠপোষকতা ছিল বলে অভিযোগ রয়েছে।

বন্যা, প্রাকৃতিক দুর্যোগে এরশাদের পোয়াবারো। কোমর পানিতে নেমে ত্রাণ বিতরণের ``ফটোসেশন `করে ফিরে আসতেন। রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে সেসব দিন-রাত প্রচার করা হতো। ব্যাকগ্রাউন্ডে চলত এন্ড্রো কিশোরের সেই বিখ্যাত গানটি `তোমাদের পাশে এসে...`। গানটির রচয়িতাও নাকি তিনি।

`কবিতাবাজি`তেও তিনি পিছিয়ে ছিলেন না। শব্দ জোড়া দিয়ে পৃষ্ঠা ভরে পাঠিয়ে দিতেন পত্রিকা অফিসগুলোতে। অনেক পত্রিকাই গদগদ হয়ে সেসব ছাপত। বেশ পুরনো এবং ঐতিহ্যবাহী একটি পত্রিকায় এরশাদের কবিতা প্রথম পৃষ্ঠায় ছাপানোর নজির আছে। সেগুলো ছাইপাশ না আসলেই কাব্যগুণ সম্পন্ন - এসব বিবেচনা করার প্রয়োজন বোধ করেনি তারা। এরশাদ তার পুরো শাসনামল জুড়েই বহুবিবাহ অসংখ্য নারীবন্ধু,নারীসঙ্গ-আসক্তি নিয়ে আলোচিত ছিলেন।

দুর্ভাগা এরশাদ:::::

দেশ স্বাধীন হওয়ার পর নানা মোড়কে অপশাসন, দু:শাসন চলেছে-চলছে । কিন্তু শুধু এরশাদের কপালে জুটেছে ,`পতিত রাষ্ট্রপতি ` `স্বৈরশাসক` `স্বৈরাচারী` এই জাতীয় বিভিন্ন তকমা। এরশাদের নামের সঙ্গে বিশেষণগুলো `ট্যাগ` লেগে গিয়েছিল।

আশির দশকের শেষের দিকে অধিকাংশ রাজনৈতিক দল-সাংস্কৃতিক জোট সকলে একাট্টা হয়েছেন - এরশাদ সরকারের পতন ঘটাতেই হবে। জাতীয় কবিতা পরিষদের মঞ্চে বসে পটুয়া কামরুল ইসলাম এরশাদের একটি ক্যারিকেচার আঁকলেন। নাম দিলেন ` বিশ্ব বেহায়া ` । ভীষণ জনপ্রিয় হয় ব্যঙ্গচিত্রটি। বিশেষ করে ` বিশ্ব বেহায়া ` উপাধিটি। পরিতাপের বিষয় চিত্রকর্মটি আঁকার কয়েক মিনিটের মধ্যে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন পটুয়া। এরশাদের পতন তিনি দেখে যেতে পারেননি।

আরেকটি বিষয় এখানে প্রনিধানযোগ্য । ১৯৮৮-৮৯ সালের দিকে আধিপত্য নিয়ে ছাত্রদল-ছাত্রলীগের মধ্যে কার্জন হল কিংবা টিএসসি এলাকায় প্রায়শই গুলা-গুলি লেগেই থাকত। গুলি থামার কয়েক মিনিটের মধ্যেই উভয়পক্ষই আলাদা মিছিল বের করত। ভাষা অভিন্ন ` ক্যাম্পাসে গুলি কেন, খুনি এরশাদ জবাব চাই `। কী দুর্ভাগা এরশাদ। তাঁর ছাত্র সংগঠন ছাত্র সমাজকে শত চেষ্টা করেও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে থিতু করতে পারেননি। এক পর্যায়ে হতাশ হয়ে ক্যাম্পাসে কার্যক্রম স্থগিত করেন। প্রকাশ্যে প্রতিদ্বন্দ্বী দুই সংগঠন সংগঠন সংঘর্ষে লিপ্ত হয়ে জবাব চায় এরশাদের কাছে।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।