Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
৩১ আষাঢ় ১৪২৭, বুধবার ১৫ জুলাই ২০২০, ৪:২১ পূর্বাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

কৃষিতে গ্রামীণ নারীর ভূমিকা অনস্বীকার্য


১৮ ডিসেম্বর ২০১৯ বুধবার, ০৮:৪০  পিএম

আতিকুর রহমান, বাকৃবি প্রতিনিধি

বহুমাত্রিক.কম


কৃষিতে গ্রামীণ নারীর ভূমিকা অনস্বীকার্য

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) ‘উন্নয়ন ও কৃষিতে গ্রামীণ নারীর অংশগ্রহণ’ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্বাবলম্বী উন্নয়ন সমিতির আয়োজনে ও মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় বুধবার সকাল সাড়ে ১০ টায় কৃষি অর্থনীতি ও গ্রামীণ সমাজবিজ্ঞান অনুষদের সভাকক্ষে ওই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

স্বাবলম্বী উন্নয়ন সমিতির নির্বাহী পরিচালক বেগম রোকেয়ার সভাপতিত্বে কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিনেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. জসিম উদ্দিন খান। ্এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে কৃষি অর্থনীতি ও গ্রামীণ সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান, ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের জেন্ডার এডভাইজার বনশ্রী মিত্র নিয়োগী ও স্বাবলম্বী উন্নয়ন সামিতির দাতা সুইডেনের অধিবাসী ওলফ মারলিংসহ বিভিন্ন অনুষদের শিক্ষক-শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কৃষি অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. সাইদুর রহমান। তিনি বলেন, নারীর ভূমিকা কোনো সময়ই অস্বীকার করা যাবে না। নারীরা এখন দেশের উন্নয়নে সর্বোচ্চ ভূমিকা রাখছে।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইনস্টিটিউট অব এগ্রিবিজনেস এন্ড ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজের প্রভাষক মৌসুমি সাহা। তিনি বলেন, মানব সভ্যতার শুরু থেকেই সভ্যতার বিকাশ, রাষ্ট্র ও সমাজ গঠনে নারীর ভূমিকা ছিল অনবদ্য। নারীরা বর্তমানে তাদের কর্মদক্ষতা ও যোগ্যতার বিচারে এখন এগিয়ে যাচ্ছে।

কৃষিতে নারীর ভূমিকা কেউ অস্বীকার করতে পারবে না। ফসল তোলার পরবর্তী কর্মকান্ড, বীজ সংরক্ষণ, সবজি উৎপাদন, ফসল উত্তরণ প্রক্রিয়ায় মাড়াই, বাচাই, শুকানো, গবাদিপশু পালনেও নারীরা ভূমিকা রেখে চলেছে। নারীরা কাজ করলেও তাদের কাজের মূল্যায়ন করা হয় না। নারীদের কাজের মূল্যালয় করাটা এখন সবচেয়ে বড় বিষয় তাদের সামনে এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে।

এসময় তিনি কর্মক্ষেত্রে নারীর বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা নিয়েও আলোচনা করেন। তিনি বলেন , বিশেষ করে লিঙ্গ বৈষম্যের কারণে কর্মক্ষেত্রে নারীরা তাদের প্রাপ্য মূল্যায়ন পাচ্ছে না। নারীর শ্রমের স্বীকৃতি, মজুরি বৈষম্য, ভূমির মালিকানা স্বীকৃতি, নারীর উন্নয়ন খাতে অর্থায়ন বৃদ্ধি, নিরাপদ কর্ম পরিবেশ সৃষ্টি করার মাধ্যমে নারীর প্রতিবন্ধকতা দূর করা সম্ভব।

ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তার নির্বাচনী ইস্তেহারে নারীর ক্ষমতায়নের কথা উল্লেখ করে এ বিষয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি ইতিমধ্যে নারীর ক্ষমতায়নে ভূমিকা রাখার জন্য আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেয়েছে। নারীরা দেশের উন্নয়নে যে হারে অবদান রেখে চলেছে সেজন্য বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে রোল মডেল হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে।

বিশ^বিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য বলেন, আমাদের দেশের অর্থনীতি গ্রামীণ কৃষির উপর অনেকটাই নির্ভরশীল। সভ্যতার সূচনা হয়েছে কৃষির মাধ্যমে। আর কৃষির সূচনা হয়েছে নারীর হাতে। তাই কৃষিতে নারীর অবদান অস্বীকার করার কোন উপায় নেই। তারা কাজ করেন কিন্তু তাদের কাজের স্বীকৃতি নেই। তাদের কাজের যথাযোগ্য স্বীকৃতি দেওয়ার মাধ্যমে কর্মস্পৃহা বাড়াতে উদ্বুদ্ধ করতে হবে।

উল্লেখ্য, স্বাবলম্বী উন্নয়ন সমিতি একটি বেসরকারী সেচ্ছাসেবী উন্নয়ন সংস্থা। এটি ১৯৮৬ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে দরিদ্র এবং পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জীবন এবং জীবিকার মানোন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

 

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

BRTA
Bay Leaf Premium Tea

নারীকথা -এর সর্বশেষ