Bahumatrik | বহুমাত্রিক

সরকার নিবন্ধিত বিশেষায়িত অনলাইন গণমাধ্যম

আষাঢ় ১২ ১৪৩১, বুধবার ২৬ জুন ২০২৪

অন্তর্ভূক্তিমূলক উন্নয়ন প্রশ্নে রবীন্দ্রনাথ আজও প্রাসঙ্গিক: ড. আতিউর

বিশেষ প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০১:৫৩, ৮ আগস্ট ২০২৩

আপডেট: ০২:০৮, ৮ আগস্ট ২০২৩

প্রিন্ট:

অন্তর্ভূক্তিমূলক উন্নয়ন প্রশ্নে রবীন্দ্রনাথ আজও প্রাসঙ্গিক: ড. আতিউর

ছবি: সংগৃহীত

অন্তর্ভূক্তিমূলক উন্নয়ন নিয়ে শতবছর পূর্বে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর যা ভেবেছিলেন সমকালীন সমাজেও তা সমানভাবে প্রাসঙ্গিক বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান। সোমবার সন্ধ্যায় রবীন্দ্রনাথের প্রয়াণ বার্ষিকীতে ঢাকাস্থ ভারতীয় হাই কমিশনের আয়োজনে ‘পূর্ববঙ্গে রবীন্দ্রনাথ এবং তাঁর গ্রামীন উন্নয়ন উদ্যোগসমূহের কিছু দিক' শীর্ষক লোক বক্তৃানুষ্ঠানে এই মন্তব্য করেন তিনি।

রাজধানীর গুলশানের ভারতীয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত এই বক্তৃতানুষ্ঠানে আতিউর রহমান কবিগুরু রবীন্দ্রনাথের এক নতুন পরিচয় মেলে ধরেন, যেখানে কবির জমিদার পরিচয় ছাপিয়ে প্রান্তিক মানুষের আপনজন পরিচয়টিই বড় হয়ে ধরা দেয়।

নাতিদীর্ঘ বক্তৃতায় ড. রহমান উল্লেখ করেন, ‘পূর্ববঙ্গে জমিদারি করতে না এলে হয়তো প্রান্তিক মানুষের দুঃখ-দুর্দশার সঙ্গে কবির এমন সম্যক পরিচয় না-ও হতে পারতো। কবির প্রান্তিক মানুষের সংগ্রামী জীবনের সঙ্গে নিবিড় পরিচয়ের সূত্রেই এক নতুন রবীন্দ্রনাথকে আমরা দেখতে পাই। পতিসর, শিলাইদহে কবি যে অভিজ্ঞতাকে আত্মসাৎ করেন তা কবির চিন্তার জগতে গভীর ছাপ ফেলে। যার ফলে শ্রমজীবী মানুষের দুঃখ লাঘবে কবিকে অনেক কর্মসূচি গ্রহণ করতেও দেখব আমরা।’

‘কিভাবে নতুন জাত ও উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহারে ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি করা যায়, সেই প্রচেষ্টাও নেন কবি। উন্নত জাতের গাভী পালনের মাধ্যমে দুগ্ধ উৎপাদন বৃদ্ধির পদক্ষেপ নেন তিনি। কবির প্রাগ্রসর চিন্তার ছাপ মেলে তাঁর উক্তিতেই, যেখানে কবিকে বলতে শোনা যাবে, ‘গ্রামের সম্পদ লুণ্ঠণের মাধ্যমে নগর প্রতিষ্ঠার ফলেই গ্রিক সভ্যতা ধ্বংস হয়ে গেছে’। গ্রামের অন্তর্ভূক্তিমূলক উন্নতির চিন্তা থেকেই নিজের ছেলে ও জামাতাকে কৃষিবিদ্যা পড়তে যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনয় বিশ্ববিদ্যালয় পাঠান তিনি। তাদের উদ্দেশ্যে পাঠানো চিঠিতে কবি লেখেন, ‘তোমাদের মনে রাখতে হবে, গ্রামের নিরন্ন কৃষকের ঘাম ঝরানো অর্থেই তোমরা পড়তে গিয়েছো, তোমাদের প্রথম কর্তব্য হবে-নিজের উন্নতি বিধান করার আগে ওই কৃষকদের ঋণ শোধ করা-তাদের ভাগ্যের পরিবর্তনে মনোযোগী হওয়া’-এই ছিলেন রবীন্দ্রনাথ’’-বলেন অধ্যাপক আতিউর রহমান। 

‘প্রান্তিক মানুষের প্রতি রবীন্দ্রনাথের এই গভীর মমত্ববোধের পরিচয় পাওয়া যাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের চিন্তা ও মননে’-উল্লেখ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগের এই ইমেরিটাস অধ্যাপক বলেন, ‘১৯৭৫ সালের ২৬ মার্চ বঙ্গবন্ধু যে অতিভাষণ দিয়েছিলেন, আমরা অবাক বিস্ময়ে লক্ষ্য করি, কৃষক ও শ্রমিক শ্রেণির প্রতি তিনি যে উচ্চারণ করেন তা রবীন্দ্রনাথের কথারই প্রতিধ্বনি। শ্রমজীবী মানুষদের মাঝে নিজের বাবা ও ভাইয়ের মুখটি খুজতে বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু, বলেছিলেন সরকারি কর্মচারীদের কৃষকদের সম্মান করে কথা বলতে। যে কথা উচ্চারণ করেছিলেন রবীন্দ্রনাথও’’

বক্তৃতানুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য দেন ঢাকাস্থ ভারতীয় হাই কমিশনের ইন্দিরা গান্ধী সাংষ্কৃতিক কেন্দ্রের পরিচালক মৃন্ময় চক্রবর্তী। বক্তৃতা শেষে দর্শকদের বিভিন্ন প্রশ্নেরও জবাব দেন ড. আতিউর রহমান। অনুষ্ঠানে ভারতীয় হাই কমিশনের কর্মকর্তা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার বিশিষ্টজনরা।   

Walton Refrigerator Freezer
Walton Refrigerator Freezer