Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
৪ শ্রাবণ ১৪২৬, শনিবার ২০ জুলাই ২০১৯, ৪:৫৬ পূর্বাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

জীবপ্রযুক্তি ও জিন প্রকৌশল শিক্ষায় দেশে প্রথম ইনস্টিটিউটের যাত্রা


১৮ এপ্রিল ২০১৯ বৃহস্পতিবার, ০৩:০২  পিএম

বিশেষ প্রতিবেদক

বহুমাত্রিক.কম


জীবপ্রযুক্তি ও জিন প্রকৌশল শিক্ষায় দেশে প্রথম ইনস্টিটিউটের যাত্রা

গাজীপুর: জীবপ্রযুক্তি ও জিন প্রকৌশল বিষয়ক উচ্চশিক্ষা ও গবেষণার প্রসার ঘটিয়ে কৃষি ও শিল্প খাতে উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে গত মঙ্গলবার গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে যাত্রা শুরু করেছে ইনস্টিটিউট অব বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং (আইবিজিই) ইনস্টিটিউট। দেশে কৃষি নিয়ে গবেষণা ও উচ্চ শিক্ষার প্রতিষ্ঠান অসংখ্য হলেও এধরণের ইনস্টিটিউট এই প্রথম।

উচ্চশিক্ষা ও গবেষণাকে আরও প্রায়োগিক এবং গণমূখি করার সমকালীন চাহিদা পূরণে এই ইনস্টিটিউটের প্রতিষ্ঠা উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি বলে অভিহিত করছেন জ্যেষ্ঠ কৃষিবিজ্ঞানীরা। তারা মনে করছেন-বিশেষায়িত উচ্চশিক্ষা, নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবন ও গবেষণার ক্ষেত্রে নতুন দিগন্তের উন্মোচনই কেবল নয়, কৃষিতে সাম্প্রতিক এবং আগামির চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা ও কার্যকর সমাধানের পথও তৈরি করতে পারে ‘আইবিজিই’।

জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদে বর্তমান বায়োটেকনোলজি বিভাগের শিক্ষক, গবেষণাগার এবং ভৌত ও কারিগরি সম্পদসমূহকে নিয়ে প্রাথমিকভাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ‘আইবিজিই’। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘আইবিজিই’ প্রতিষ্ঠার স্বপদ্রষ্টা ও বায়োটেকনোলজি বিভাগের জ্যেষ্ঠ শিক্ষক অধ্যাপক ড. মো. তোফাজ্জল ইসলামের হাতেই নতুন এই ইনস্টিটিউটটির নেতৃত্বভার অর্পণ করেছে কর্তৃপক্ষ। ‘আইবিজিই’র প্রথম পরিচালক হিসেবে পরবর্তী দুই বছর তিনি ইনস্টিটিউটটির বাস্তব রূপদানে কাজ করবেন।

ইনস্টিটিউট সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ১৬ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের সুপারিশক্রমে আইবিজিই প্রতিষ্ঠার একটি অর্ডিন্যান্স ওই বছরের ২৩ আগস্ট সিন্ডিকেট সভায় অনুমোদিত হয়। গত একনেক সভায় এটি প্রতিষ্ঠাকল্পে ভৌত সুবিধাদি স্থাপনের লক্ষ্যে ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়।

বাংলাদেশ সরকারের রূপকল্প ২০২১-এর গুরুত্ব বিবেচনা করে প্রাথমিকভাবে আইবিজিই ৪টি ডিসিপ্লিন বা বিভাগ নিয়ে যাত্রা শুরু করেছে। এগুলো হচ্ছে, উদ্ভিদ জীবপ্রযুক্তি, মাৎস্য জীবপ্রযুক্তি, ভেটেরিনারি ও অ্যানিম্যাল জীবপ্রযুক্তি এবং অণুজীবীয় ও শিল্প বিষয়ক জীবপ্রযুক্তি।

-অধ্যাপক ড. মোঃ তোফাজ্জল ইসলাম

ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ড. মোঃ তোফাজ্জল ইসলাম জানান, দেশে টেকসই কৃষি ও শিল্পোন্নয়নে আইবিজিই গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে বলে আশা করা যায়। তিনি বলেন, এটি প্রতিষ্ঠার ফলে দেশে জীবপ্রযুক্তি ও জিন প্রকৌশল বিষয়ে উচ্চমানসম্পন্ন এমএস এবং পিএইচডি পর্যায়ের শিক্ষা, গবেষণা এবং বহিরাঙ্গন কার্যক্রমের নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে, যা দেশে টেকসই কৃষি ও শিল্পের উন্নয়নে বিশেষ অবদান রাখবে। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন বিবেচনায় আইবিজিই প্রতিষ্ঠা একটি সময়োচিত পদক্ষেপ বলে তিনি মনে করেন।

অধ্যাপক তোফাজ্জল ইসলাম বলেন, ‘সমকালীন কৃষি গবেষণা ও খাদ্য উৎপাদন প্রক্রিয়ায় এধরণের ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা সময়ের দাবি ছিলো। এর প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে সেই আকাঙ্খা বাস্তবরূপ পেলো। কৃষি প্রধান দেশ হওয়া সত্ত্বেও এই প্রথম এধরণের ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিঃসন্দেহে সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনারই বাস্তবায়ন।’

‘‘জনগণের অর্থে প্রতিষ্ঠিত ও পরিচালিত উচ্চশিক্ষা এবং গবেষণার বিদ্যাপীঠগুলোর সমাজের প্রতি দায়বদ্ধতা রয়েছে। কৃষি ও শিল্পঘন এই অঞ্চলের সংকট-সম্ভাবনা নিয়ে নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করে যাওয়ার অঙ্গীকারও করছে ‘আইবিজিই’। সমাজের সঙ্গে কার্যকর সেতুবন্ধনে ‘আইবিজিই’র কাঙ্খিত সেই যাত্রা নতুন উদাহরণ হোক-এ আমাদের প্রত্যাশা’’-যোগ করেন ইনস্টিটিউটের স্বপ্নদ্রষ্টা।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।