Bahumatrik Multidimensional news service in Bangla & English
 
৭ আষাঢ় ১৪২৫, শুক্রবার ২২ জুন ২০১৮, ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ
Globe-Uro

যেভাবে গঠিত হয়েছিলো বাংলাদেশের প্রথম সরকার


১৭ এপ্রিল ২০১৮ মঙ্গলবার, ১১:২১  এএম

বহুমাত্রিক ডেস্ক


যেভাবে গঠিত হয়েছিলো বাংলাদেশের প্রথম সরকার

ঢাকা : ১৭ই এপ্রিল। ১৯৭১ এর এই দিনে আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মপ্রকাশ করেছিলো গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের প্রথম সরকার। মুক্তিসংগ্রাম পরিচালনা থেকে শুরু করে বহির্বিশ্বে স্বীকৃতি আদায় করা সবই ছিল এর সরকারের কৃতিত্ব।

১৯৭১-এর এপ্রিল। রাজধানীর পর জেলায় জেলায় নিরীহ বাঙালীর ওপর আক্রমণের সীমানা প্রসারিত করছে পাকিস্তানী সামরিক জান্তা। কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে আবার কোথাও সংগঠিতভাবে এ আক্রমণে প্রতিরোধ গড়ছে বীর বাঙালী।

রাজপথ থেকে কৃষকের সবুজ মাঠ যখন রঞ্জিত বাঙালীর রক্তে, তখন স্বাধীন বাংলার শেষ সূর্য অস্ত যাবার অভিশপ্ত পলাশী থেকে মাত্র ৭০ কিলোমিটার দূরের মুজিবনগরের বৈদ্যনাথতলার এক অখ্যাত আমবাগানে জন্ম নেয় রাষ্ট্রীয় কাঠামোর বাংলাদেশ। সবুজের আচ্ছাদনের এ বাগানেই শপথ নেয় ১০ এপ্রিল গঠিত বাংলাদেশের প্রথম সরকার, প্রথম মন্ত্রীসভা।

কেমন ছিলো তখনকার পরিস্থিতি? জানালেন তৎকালীন মেহেরপুর মহকুমার প্রশাসক তৌফিক ই ইলাহী চৌধুরী বলেন, `গাড়ি বহর এলো। প্রায় পঞ্চাশটা গাড়ি। বিভিন্ন দেশের বিভিন্ন মিডিয়ার লোকজন আসলো। খুব তাড়াতাড়ি ঘটনাগুলো ঘটলো। কথা ছিলো মেজর উসমান গার্ড অব অনার দেবেন। কিন্তু উনি আসছেন না। এমন সময় মাহবুবকে বললাম, তুমি একটা গার্ড অব অনার দেয়ার ব্যবস্থা করতে পারো কিনা। তখন সে বললো, দেখি কি করা যায়। আনসার যারা ছিলো তারাও তো ট্রেনিং নিয়েছে। তাদের পায়ে জুতা নেই, মলিন কাপড় কিন্তু উৎসাহের কোন অভাব ছিলো না।`

পনেরোটি মন্ত্রণালয় ও বিভাগ নিয়ে স্বল্প পরিসরে যাত্রা শুরু করে এই সরকার। পাকিস্তানের কারাগারে বন্দি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রাষ্ট্রপতি, তার অবর্তমানে সৈয়দ নজরুল ইসলাম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি এবং তাজউদ্দিন আহমেদ প্রধানমন্ত্রী হিসাবে নিযুক্ত হয়েছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের প্রধান সেনাপতি হিসেবে ঘোষণা করা হয় জেনারেল এম এ জি ওসমানীর নাম।

বাংলাদেশের প্রথম মন্ত্রিপরিষদ সচিব এইচ টি ইমাম বলেন, `সবসময় একটি স্বাধীন সরকারের মতো পরিচালনা করেছি। একটি আধুনিক রাষ্ট্রের সরকারের যেমন কাঠামো থাকে এরও তেমই একটি কাঠামো ছিলো। দপ্তর ছিলো খুব ছোট কিন্তু সেখানে পরিশ্রমের কোন কমতি ছিলো না।`

মুক্তিযুদ্ধের এ সংগঠকরা বলছেন, শুধু যুদ্ধ পরিচালনা নয় বাংলাদেশের মুক্তিসংগ্রামকে বাকি বিশ্বের সামনে তুলে ধরেছিলো এ সরকার।

তৌফিক ই ইলাহী চৌধুরী বলেন, `সিকিউরিটি কাউন্সিল তো বাদ দিলাম, জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে কয়েকটি দেশ ছাড়া সবাই কিন্তু আমাদের বিপক্ষে চলে গিয়েছিলো।`

আর এইচ টি ইমাম বলেন, `এই সরকারের অধীনেই আমরা কয়েক জায়গায় প্রতিনিধি পাঠিয়েছি। বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরীর নেতৃত্বে জাতিসংঘে আবার জ্যোতিপাল মহাথেরো, ফকির শাহবুদ্দিনদের দিয়ে দক্ষিণ এশিয়ায় প্রতিনিধি পাঠিয়েছি।

মুজিবনগর সরকারের চেতনা প্রেরণা যোগাবে প্রতিটি বাঙালীকে, আপোষহীন করবে নিরন্তর বলছেন এই দুই সংগঠক।

সংগৃহীত 

 

 

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

BRTA
ভাগ হয়নি ক' নজরুল
Bay Leaf Premium Tea
Intlestore

মুক্তিযুদ্ধ -এর সর্বশেষ

Hairtrade