Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
১ পৌষ ১৪২৬, রবিবার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ৫:৩৬ অপরাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

হলি আর্টিজান হামলার আদ্যোপান্ত


২৭ নভেম্বর ২০১৯ বুধবার, ১০:২৬  এএম

বহুমাত্রিক ডেস্ক


হলি আর্টিজান হামলার আদ্যোপান্ত

ঢাকা : গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার প্রায় সাড়ে ৩ বছরের মাথায় আজ মামলার রায় । মাত্র ৬০ কার্যদিবসে বিচারপ্রক্রিয়া শেষে ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনাল, দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় এ জঙ্গি হামলা মামলার রায় ঘোষণা করবেন। আদালতে সব আসামির সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ড চেয়েছেন রাষ্ট্রপক্ষ।

২০১৬ সালের ১ জুলাই রাতে গুলশান-২-এর ৭৯ নম্বর সড়কের পাশে অবস্থিত হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গিরা হামলা চালান। পরদিন সকালে সেনা কমান্ডো অভিযানে পাঁচ জঙ্গিসহ ছয়জন নিহত হন। এরপর হলি আর্টিজান বেকারি থেকে পুলিশ ১৮ বিদেশিসহ ২০ জনের মরদেহ উদ্ধার করে। হামলার ৩ দিন পর ৪ জুলাই রাতে গুলশান থানার সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা করে পুলিশ। এর দুই বছর পর তদন্ত শেষে ২০১৮ সালের ২৩ জুলাই জীবিত আট হামলাকারীর বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট।

একই বছরের ২৬ নভেম্বর, আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বিচারকাজ শুরু করেন ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনাল। ৩ ডিসেম্বর বাদীর জবানবন্দির মধ্য দিয়ে শুরু হয় মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ। ২১১ জনের মধ্যে আদালতে সাক্ষ্য দেন ১১৩ জন। যা শেষ হয় চলতি বছরের ২৭ অক্টোবর।

সবশেষ সাক্ষী হিসেবে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আদালতে বলেন, নব্য জেএমবির সদস্যরা নিজেদের সামর্থ্যের জানান দিতে দেশে শরীয়া আইন প্রতিষ্ঠা করতেই হামলা চালায়। হামলার বিভৎসতা একাত্তরের গণহত্যার মতো নৃশংস ছিল- বলেও আদালতে সাক্ষ্য দেন তিনি।

৬ নভেম্বর শুরু হয় রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন। হামলাকারীরা ঠান্ডামাথায় পরিকল্পিতভাবে জঘন্য এ হত্যাযজ্ঞ চালায় জানিয়ে, আদালতে আট আসামিদের সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ডের আবেদন করেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা। দুদিন রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে ৮ নভেম্বর যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুরু করে আসামিপক্ষ।

উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থান শেষে গত ১৭ নভেম্বর রায়ের দিন ধার্য করেন বিচারক মজিবুর রহমান।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।