Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, মঙ্গলবার ২৬ মে ২০২০, ৮:১৬ পূর্বাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

সব নিট পোশাক কারখানা ৪ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা


২৭ মার্চ ২০২০ শুক্রবার, ০৪:২৪  পিএম

বহুমাত্রিক ডেস্ক


সব নিট পোশাক কারখানা ৪ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা

করোনা ভাইরাসের কারণে দেশের বিকেএমইএর অন্তর্ভুক্ত সব নিট পোশাক কারখানা আগামীকাল শনিবার থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শুক্রবার সাংবাদিকদের এ তথ্য জানায় বাংলাদেশ নিটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিকেএমইএ) কর্তৃপক্ষ।

এর আগে দেশের করোনাভাইসের বিস্তার ঠেকাতে ও শ্রমিকদের সুরক্ষায় পোশাক কারখানা বন্ধ রাখার আহ্বান জানিয়েছেন বিজিএমইএ সভাপতি রুবানা হক। বৃহস্পতিবার রাতে এক বার্তায় কারখানা মালিকদের প্রতি এ আহ্বান জানান তিনি।

রুবানা হক বলেন, মহান স্বাধীনতা এবং জাতীয় দিবস উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী আমাদের সবাইকে সুনির্দিষ্ট দিক-নির্দেশনা দিয়েছেন। সবার সুরক্ষার এবং সুস্বাস্থ্যের জন্য কিছু সচেতনতামূলক পদক্ষেপ নিতে বলেছেন। প্রধানমন্ত্রীকে অনুসরণ করে সর্ববৃহৎ শিল্প হিসেবে আমাদের দৃষ্টান্ত স্থাপন করা উচিত। এ অবস্থায় কারখানা বন্ধ করে দেয়ার বিষয়টি বিবেচনা করবেন বলে আশা করি।

সরকারের সাধারণ ছুটির সময়ে কারখানা বন্ধ রাখার আহ্বান জানিয়ে রুবানা হক বলেন, তবে কেউ চাইলে কারখানা খোলা রাখতে পারবেন। পিপিই ও মাস্ক তৈরি হচ্ছে এমন কারখানাগুলো খোলা থাকবে বলে। খোলা রাখা কারখানাগুলোকে শ্রমিকের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করার কথা বলেন তিনি।

দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস মহামারি রূপ নেয়ায় সর্তক অবস্থানে যায় বাংলাদেশ সরকার। কর্মীদের সুরক্ষার কথা চিন্তা করে দেশের সব সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বিভিন্ন জেলায় ঘোষণা করা হয়েছে লকডাউন। মানুষের নিরাপত্তার কথা মাকরোনা ভাইরাসের কারণে দেশের বিকেএমইএর অন্তর্ভুক্ত সব নিট পোশাক কারখানা শনিবার থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শুক্রবার সাংবাদিকদের এ তথ্য জানায় বাংলাদেশ নিটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিকেএমইএ) কর্তৃপক্ষ।

এর আগে দেশের করোনাভাইসের বিস্তার ঠেকাতে ও শ্রমিকদের সুরক্ষায় পোশাক কারখানা বন্ধ রাখার আহ্বান জানিয়েছেন বিজিএমইএ সভাপতি রুবানা হক। বৃহস্পতিবার রাতে এক বার্তায় কারখানা মালিকদের প্রতি এ আহ্বান জানান তিনি।

রুবানা হক বলেন, মহান স্বাধীনতা এবং জাতীয় দিবস উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী আমাদের সবাইকে সুনির্দিষ্ট দিক-নির্দেশনা দিয়েছেন। সবার সুরক্ষার এবং সুস্বাস্থ্যের জন্য কিছু সচেতনতামূলক পদক্ষেপ নিতে বলেছেন। প্রধানমন্ত্রীকে অনুসরণ করে সর্ববৃহৎ শিল্প হিসেবে আমাদের দৃষ্টান্ত স্থাপন করা উচিত। এ অবস্থায় কারখানা বন্ধ করে দেয়ার বিষয়টি বিবেচনা করবেন বলে আশা করি।

সরকারের সাধারণ ছুটির সময়ে কারখানা বন্ধ রাখার আহ্বান জানিয়ে রুবানা হক বলেন, তবে কেউ চাইলে কারখানা খোলা রাখতে পারবেন। পিপিই ও মাস্ক তৈরি হচ্ছে এমন কারখানাগুলো খোলা থাকবে বলে। খোলা রাখা কারখানাগুলোকে শ্রমিকের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করার কথা বলেন তিনি।

দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস মহামারি রূপ নেয়ায় সর্তক অবস্থানে যায় বাংলাদেশ সরকার। কর্মীদের সুরক্ষার কথা চিন্তা করে দেশের সব সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বিভিন্ন জেলায় ঘোষণা করা হয়েছে লকডাউন। মানুষের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে মাঠে নামানো হয়েছে সেনাবাহিনী। সতর্ক অবস্থানে আছে সর্বসাধারণ।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।