Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
৩ ভাদ্র ১৪২৬, সোমবার ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৩:২০ পূর্বাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

পলক নদীতে বাঁশের খাঁটি: বাঁধাগ্রস্ত প্রবাহ ও মাছের বিচরণ


২৮ মে ২০১৯ মঙ্গলবার, ১২:১৫  এএম

নূরুল মোহাইমীন মিল্টন, নিজস্ব প্রতিবেদক

বহুমাত্রিক.কম


পলক নদীতে বাঁশের খাঁটি: বাঁধাগ্রস্ত প্রবাহ ও মাছের বিচরণ

মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ ও রাজনগর উপজেলার সীমান্তবর্তী পলকনদীতে স্থানে স্থানে বাঁশের বেড়া (খাঁটি) স্থাপন করায় বাঁধাগ্রস্ত হচ্ছে পানি ও মাছের অবাদ গতিপ্রবাহে। একাধিক খাঁটির কারণে পানি নিস্কাশনে বাঁধাগ্রস্ত হওয়ায় জলাবদ্ধতায় কৃষকের সবজি ক্ষেত বিনষ্টের অভিযোগ রয়েছে।

সরেজমিন ঘুরে জানা যায়, সম্প্রতি সময়ে ভারী বর্ষন ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে কমলগঞ্জ, কুলাউড়া ও রাজনগর উপজেলার একাংশ বন্যা প্লাবিত হয়। বন্যার পানি আসার সাথে সাথে এক শ্রেণির অসাধু মৎস্য আহরণকারীরা পলকনদীর স্থানে স্থানে অসংখ্য বাঁশের খাঁটি স্থাপন করেছে। রাজনগর, কুলাউড়া ও কমলগঞ্জ এই তিন উপজেলার কয়েকটি গ্রামের পানি নিস্কাশনের একমাত্র ব্যবস্থা হচ্ছে পলকনদী। নদীটি কুলাউড়া উপজেলার সীমান্তবর্তী স্থান থেকে উৎপত্তি হয়ে মনু নদীতে মিলিত হয়েছে।

তবে মাছ ধরার জন্য স্থানীয় অসাধু সুবিধাভোগীরা প্রতি বছর এই নদীতে বাঁশের খাঁটি বসিয়ে মাছ আহরণ করেন। ফলে যথাসময়ে পানি নিস্কাশন হতে পারে না। উপরের এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হওয়ায় ফসলি জমি ও সবজি ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি সাধন হয়। মৎস্য আইনে নদীতে এভাবে আড়াআড়ি বেড়া বা বাঁশের খাঁটি দেয়া নিষিদ্ধ হলেও প্রকাশে এসব অপতৎপরতা চলছে। খাঁটির সাথে পানিতে স্থাপিত ঝাকিতে মাছ, সাপ, কুচিয়াসহ নানা প্রকার জলজ প্রাণী আটকা পড়ছে এবং মারা যাচ্ছে। নদীতে পলিবালি আটকা পরে ভরাট হচ্ছে। দক্ষিণ পলকী গ্রামের আনোয়ার খান, শান্তকুলের আরব আলী, উত্তর পলকী গ্রামের জুবের আহমদ, ইউনুছ খান, সুফিয়ান খান, আজম খানের এক একটি করে বাঁশের খাঁটি ছাড়াও উত্তর পলকী ও শান্তকূল গ্রামে অসংখ্য খাঁটি স্থাপন করা হয়েছে।

এলাকার স্কুল শিক্ষক জমশেদ আলী, সমাজকর্মী দুলাল চৌধুরী বলেন, একটি মহল প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে অবৈধভাবে বাঁশের খাঁটি স্থাপন করে মাছ শিকার করেন। এতে পানি প্রবাহ বাধাগ্রস্ত হয় এবং জলাবদ্ধতায় মনসুরপুর, আফসলগতি, ব্রাহ্মনঊষার, পলকীর পারসহ কয়েকটি গ্রামের অনেক কৃষকের সবজি ক্ষেত বিনষ্ট হয়েছে। তারা আরও বলেন, পলক নদীর বিভিন্ন স্থানে প্রায় বিশটির মতো খাঁটি বসানো হয়েছে। এধরণের কার্যক্রম পরিবেশ বিধ্বংসী হলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নির্বিকার।

এ ব্যাপারে মৌলভীবাজার জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ এমদাদুল হক বলেন, এসব অবৈধ বাঁশের খাঁটি অপসারণে উপজেলা কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কমলগঞ্জ উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. আসাদ উল্ল্যা বলেন, সেখানে অভিযান পরিচালনা করা হবে।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

Netaji Subhash Chandra Bose
BRTA
Bay Leaf Premium Tea

অসঙ্গতি প্রতিদিন -এর সর্বশেষ