Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
৩ ফাল্গুন ১৪২৫, শনিবার ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৫:৪৫ পূর্বাহ্ণ
Globe-Uro

দল-মত নির্বিশেষে সকলের জন্য কাজ করে যাব: শেখ হাসিনা 


১৯ জানুয়ারি ২০১৯ শনিবার, ০৮:২০  পিএম

বিশেষ প্রতিবেদক

বহুমাত্রিক.কম


দল-মত নির্বিশেষে সকলের জন্য কাজ করে যাব: শেখ হাসিনা 

ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, সবাইকে মনে রাখতে হবে, বিজয় পাওয়া কঠিন কিন্তু সেই বিজয় ধরে রাখা আরও কঠিন। জনগণ রায় দিয়েছেন শান্তি ও উন্নয়নের পক্ষে। তারা শান্তি চায়। তারা উন্নয়ন চায়, চায় বাংলাদেশ সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে যাক। 

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের নিরঙ্কুশ বিজয় উপলক্ষে শনিবার (১৯ জানুয়ারি) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দীতে আওয়ামী লীগের বিজয় উৎসব সমাবেশে একথা বলেন তিনি।

আওয়ামীলীগ সভাপতি বলেন, ‘জয়-পরাজয় একটা নির্বাচনে স্বাভাবিক ব্যাপার। আমি এটুকু তাদের বলতে চাই, আওয়ামী লীগ নৌকা মার্কায় ভোট পেয়ে জয় পেয়েছে এটা সত্য কিন্তু যখন রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা হাতে এসেছে, যখন দায়িত্ব পেয়েছি জনগণের সেবা করার, যখন দায়িত্ব পেয়েছি মানুষের জন্য কাজ করার; তখন আমি দ্ব্যর্থহীনভাবে বলতে পারি, দল-মত নির্বিশেষে সকলের জন্যই আমাদের সরকার কাজ করে যাবে।’ 

সরকারপ্রধান বলেন, ‘আওয়ামী লীগের নির্বাচনি ইশতেহারের পক্ষে জনগণ রায় দিয়েছে। সেই ভোটের সম্মান যাতে থাকে, অবশ্যই আমরা সেই বিষয়টা সবসময় মাথায় রেখে সার্বিকভাবে সুষম উন্নয়ন করে যাবো দেশের জনগণের স্বার্থে। আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তুলেছি। আরও আধুনিকভাবে ডিজিটাল বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে। জনগণের এই রায় হচ্ছে, সেই আধুনিক ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার পক্ষে রায়। এই রায় হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের আদর্শের পক্ষে রায়। এর ভিত্তিতে আমি বলবো, বাংলার মাটিতে স্বাধীনতাবিরোধী-যুদ্ধাপরাধীদের কোনও স্থান হবে না। দুর্নীতিবাজ, জঙ্গিবাদ, মাদক ও সন্ত্রাসের স্থান হবে না, বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় গড়ে উঠবে। আমরা যে অঙ্গীকার করেছি, সে অঙ্গীকার আমরা অক্ষরে-অক্ষরে পূরণ করবো। আজকের এই সমাবেশে আমি সে কথাই বলে যেতে চাই, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘ব্যক্তিগত জীবনে কোনও চাওয়া-পাওয়া আমার নেই। স্বজন হারানোর সেই বেদনা নিয়েও এই দেশকে গড়ে তুলবো। ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্রমুক্ত উন্নত-সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ হিসেবে, যে বাংলাদেশে একটি মানুষও ক্ষুধার্ত থাকবে না, একটি মানুষও গৃহহারা থাকবে না। প্রতিটি মানুষের চিকিৎসার ব্যবস্থা করবো। মানুষ ঘর পাবে, সুন্দরভাবে বাঁচবে। তরুণ সমাজের জন্য কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে। বাংলাদেশ হবে উন্নত সমৃদ্ধ দেশ।’

তিনি বলেন, বাংলাদেশের জনগণ বারবার ভোট দিয়ে আমাকে সেবা করার সুযোগ দিয়েছেন। জাতির পিতা স্বল্পোন্নত দেশ রেখে গিয়েছিলেন, আজকের বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশ। এই উন্নয়নশীল দেশ হিসেবেই বাংলাদেশকে আমরা এগিয়ে নিয়ে যাবো আগামী দিনের সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায়। বাংলাদেশ হবে উন্নত সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ। এটাই আমাদের প্রতিজ্ঞা। এটাই আমাদের লক্ষ্য।

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘বিগত নির্বাচনে জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করেছে। জনগণ এই ভোট দিয়েছে দুর্নীতির বিরুদ্ধে, জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে, মাদক ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে। সরকার, জনপ্রতিনিধি, দলীয় নেতাকর্মী সবাই মিলে সেগুলো নিশ্চিত করতে হবে। দুর্নীতি ও জঙ্গিবাদ দূর করতে হবে। মাদক আর সন্ত্রাস নির্মূল করতে হবে।

সমাবেশে তিনি বলেন, ‘নির্বাচনী অঙ্গীকার অক্ষরে অক্ষরে পালন করবে আওয়ামী লীগ সরকার। বাংলাদেশের জনগণ বারবার ভোট দিয়ে আমাদের সেবা করার সুযোগ দিয়েছে। বাংলাদেশ হবে উন্নত,সমৃদ্ধ ও সোনার বাংলাদেশ। এ লক্ষ্য বাস্তবায়ন করতে হলে দেশকে দুর্নীতি ও মাদকমুক্ত করতে হবে’

তিনি বলেন, `এই রায় জঙ্গিবাদ ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে। শান্তি ও উন্নয়নের পক্ষে রায় দিয়েছে জনগণ। অন্ধকার থেকে আলোর পথের যাওয়ার রায় দিয়েছে জনগণ। এ রায় হচ্ছে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার রায়। নির্বাচনী অঙ্গীকার অক্ষরে অক্ষরে পূর্ণ করবে আওয়ামী লীগ সরকার। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে`।

 

শেখ হাসিনা বলেন, ‘৩০ ডিসেম্বরের বিজয় স্বাধীনতার স্বপক্ষের জনগণের। এই রায় হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের আদর্শের প্রতি রায়। এ নির্বাচন অন্ধকার থেকে আলোর পথে যাত্রার রায়। তাই জনগণের প্রতি দায়বদ্ধতার কথা জনপ্রতিনিধিদের মনে রাখতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘ঐক্যবদ্ধ শক্তি সবসময় বিজয় অর্জন করে এই নির্বাচনে সেটাই প্রমাণ হয়েছে। যারা এই নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন, সব রাজনৈতিক দল, সবাইকে আমি ধন্যবাদ জানাই এই কারণে যে, তারা নির্বাচনে অংশ নিয়ে নির্বাচনকে অর্থবহ করেছেন। তবে আমরা যেহেতু সরকার গঠন করার সুযোগ পেয়েছি, জনগণের সেবা করার সুযোগ পেয়েছি, আমরা সবার তরে সবার জন্য কাজ করবো। এ বিজয় আমার একার নয়, এ বিজয় বাংলাদেশের সব জনগণের।’

শনিবার দুপুর আড়াইটায় রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এ বিজয় সমাবেশ শুরু হওয়ার কথা থাকলেও সকাল থেকেই নেতাকর্মীরা উদ্যানে জড়ো হতে থাকেন। সকাল ১০টা থেকেই সোহরাওয়ার্দী উদ্যান লোকারণ্য হয়ে ওঠে। ‘জয় বাংলা’ স্লোগানে উদ্যান মুখরিত হয়। নেতাকর্মীদের মধ্যে নারীদের পরনে লাল ও সবুজ রঙের শাড়ি এবং ছেলেদের বেশিরভাগ লাল ও সবুজ রঙের গেঞ্জি ও টুপি পরে সমাবেশে উপস্থিত হন।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।