Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
২৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, বৃহস্পতিবার ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ৮:৫৬ পূর্বাহ্ণ
Globe-Uro

ডাঃ মোঃ কফিল উদ্দিন চৌধুরীর দু’টি কবিতা


১৪ নভেম্বর ২০১৮ বুধবার, ১২:১৩  এএম

বহুমাত্রিক.কম


ডাঃ মোঃ কফিল উদ্দিন চৌধুরীর দু’টি কবিতা

আমার ভয়

ধর্মের প্রতি আমার নেই কোন বিদ্বেষ।
ঈশ্বরে আমার পূর্ণাঙ্গ বিশ্বাস।
কিন্তু আমার ভয়-
ধর্মের নামে বাড়াবাড়িকে, ধর্ম নিয়ে ব্যবসাকে,
ধর্মের নামে সাম্প্রদায়িক সংঘাতের উসকানিকে।

অবিশ্বাসের প্রতি আমার নেই কোন দ্বন্দ্ব।
ভিন্ন মতের প্রতি আমার দ্বিমত থাকতে পারে।
কিন্তু আমার ভয়-
অবিশ্বাসের নামে বিশ্বাসের মূলে কুঠারাঘাতকে,
মত প্রকাশের স্বাধীনতার নামে অন্যের মতের অনুভূতিতে আঘাত দেয়াকে,
অবিশ্বাসের জাগদ্দল পাথর যখন জোর করে বিশ্বাসের বুকের উপর চালানোর চেষ্টা চলে।

সৌন্দর্যের প্রতি আমার নেই কোন ঈর্ষা।
আমি সুন্দরের পূজারী।
কিন্তু আমার ভয়-
সৌন্দর্যের কর্কট প্রকাশের নামে বেহায়া-বেলাল্লাপনাকে,
সৌন্দর্যকে পন্যের মত বাজারে বিকানোকে,
সৌন্দর্যকে পুঁজি করে প্রচ্ছন্ন বৈষ্যমের ব্যবসাকে।

বিচারের প্রতি আমার নেই কোন অবমাননা।
বিচারের প্রতি আমার পূর্ণ সম্মান।
কিন্তু আমার ভয়-
বিচারের নামে কালক্ষেপনকে, আইনের অপব্যবহারের দ্বারা বিচারের নামে
অবিচার নামক প্রহসনকে,
কিংবা পক্ষপাতদুষ্ট এক চোখা বিচারকে।

অর্থের প্রতি আমার নেই কোন মোহ।
তবু আমার অর্থের প্রয়োজন।
কিন্তু আমার ভয়-
অর্থের প্রয়োজন যখন আকাঙ্খায় রূপ নেয়, সাদা টাকা যখন কালো টাকায় রূপ নেয়
অর্থই যখন অনার্থের কারণ হয়,
অর্থ যখন শ্রেণী সাম্যের হাতিয়ার না হয়ে শ্রেণী বৈষম্যের প্রাচীর হয়ে দাঁড়ায়।

রাজনীতির প্রতি আমার নেই কোন অনাস্থা।
শাসকের প্রতি আমার শত-সহ¤্র সালাম।
কিন্তু আমার ভয়-
শাসনের নামে ক্ষমতার অপব্যবহারকে,
শাসনের নামে রাহাজানি, দখলদারী, দলবাজীর বাড়াবাড়িকে,
শাসনকে যখন প্রতিপক্ষকে দমানোর হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

দানের প্রতি আমার নেই কোন বাধা।
দান আমার কাছে স্বর্গীয়।
কিন্তু আমার ভয়-
দানের নামে লোক দেখানোকে,
দানের নামে প্রাধান্য বিস্তারকে,
দান যখন শুধুমাত্র বাহ্বা কুড়ানোর উপলক্ষ্য হয় মাত্র।

প্রতিবাদের প্রতি আমার নেই কোন ঘৃণা।
যুক্তিসম্মত প্রতিবাদের প্রতি আমার আকুণ্ঠ সমর্থন।
কিন্তু আমার ভয়-
প্রতিবাদের নামে হানা-হানি, মারামারিকে,
প্রতিবাদের নামে সারা দেশ অচল করে দেয়াকে,
প্রতিবাদের গন্ধ ধরে বিশ্ব মোড়লরা যখন দেশের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে নাক গলায়।

 

মুখ ফেরাক না


মুখ ফেরাক না, সা¤্রাজ্যবাদী তেলখোর লুটেরার দল।
তোমার কি ভয়? ওহে ফিলিস্তিনবাসী-
তোমার সাথে আছে বিশ্ব বিবেক, তোমার সাথে আছে মাদার তেরেসার আশীর্বাদ,
তোমার পবিত্র ভূমিতে আছে নবী মোহাম্মদের দুই চরণের ছোয়া,
তোমার সাথে আছে নেলসন ম্যান্ডেলার প্রতিবাদের ভ্রƒকটি মাখা হাসি,
আছে ফাদার ডেসমন্ড টুটুর ঈশ্বরের কাছে নত শীর।
মহাবিজ্ঞানী স্টিফেন হকিংসের প্রতিবাদে তেল-আবিবে জ্ঞানগর্ভ বক্তৃতা দানে অস্বীকৃতি,
দখলদার জায়নবাদী ভূমিতে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর প্রতিবাদে
খেলতে না যাওয়া কিংবা নায়িকা নাটালি পোর্টম্যানের
দখলদার নরপিচাশদের বিনোদনের উপলক্ষ্য না হওয়া; তোমার সাথে আছে।
তবু কেন, কি ত্রাসে কাঁপে অন্তরাত্মা তোমার?
মুখ ফেরাক না, গেরুয়া বসনা বাবরী মসজিদ ভাঙ্গা সাম্প্রদায়িক মৌলবাদীর দল।
কিসের এত হতাশা, ওহে মরুবাসী।
তোমার সাথে আছে আল আকসা মসজিদের আযানের ধ্বনি,
তোমার সাথে আছে বেথলেহেম গির্জার প্রার্থনা সঙ্গীত,
তোমার সাথে আছে তিব্বতের মেরুবাসী দালাইলামার
মুখ নিঃসৃত গৌতম বুদ্ধের অহিংস বাণী,
তোমার প্রতি আছে নাস্তিক-আস্তিক সকলের নিরব সমর্থন।
তোমার সুখে তোমার মুসলমান ভাইয়েরা হাসে,
তোমার দুঃখে তোমার মুসলমান ভাইয়েরা কাঁদে,
তোমার সমর্থনে ধার্মিক-অধার্মিক নির্বিশেষে সকলেই রাজপথে
প্ল্যাকার্ড হাতে দাঁড়ায়, প্রতিবাদে গলা ফাটায়।
তবু কিসের বেদনায় সাহারাবাসী উট পাখির মত বালির নিচে করে মাথা নত?
মুখ ফেরাক না, প্রাণাধিক ক্ষমতা লিপ্সু মধ্যপ্রাচ্যের
পথভ্রষ্ট বিশ্বমোড়লের দালাল বাদশা-শেখ-আমীর কূল।
দানব ইসরাঈল তোমাদের দিকে তাক করুক না বন্দুক, কামান, রকেট কিংবা বোমা পারমানবিক।
তোমাদের লাশের উপর দিয়ে বসত গুড়িয়ে করুক না
উদ্বাস্তু তোমাদের, তোমাদের রক্তে অবগাহনে হোক না জায়নবাদীদের উল্লাস।
কেন এত শঙ্কা, ওহে অত্যাচারিত মজলুমের দল?
তোমার সাথে আছে এডওয়ার্ড সাঈদের প্রতিবাদী লেখা,
আছে কবি কামাল দারবিশের হার না মানা বিদ্রোহী কবিতা;
প্রতিটি যেন এক-একটি প্রতিবাদের বোমা হয়ে ফোটে
বিশ্ব বিবেককে নাড়া দেয়।
তোমার সাথে আছে বিশ্ব নেতা ইয়াসির আরাফাতের অপ্রাপ্তি
কিংবা হামাসের আপসহীন সংগ্রাম।
তোমার সাথে আছে ইসরাঈলের ড্রোন মোকাবেলায়
আশার অগ্নিঘূড়ি।
অস্ত্র তোমাদের ইট, পাথর আর গুলতি।
আরও আছে অরাতির ছোড়া কাঁদানে গ্যাসে দুই চোখ নিঃসৃত অশ্রুজল,
আছে মুসলমানদের প্রথম কিবলা বায়তুল মুকাদ্দাস,
আছে ভূমধ্য সাগর হতে ভেসে আসা শান্ত শীতল বাতাস,
মুরু সাগরের লোনা জল প্রতিনিয়ত ধোয়ায় তোমার দেশ মাতার পদপ্রান্ত।
তোমার খেজুর বাগিচায় বুলবুল ধরে গান, সায়মুম বাতাসে মুরুদ্যানের
পাতায় পাতায় বাজে ঝিল্লর ধ্বনি।
রুক্ষধূসর শীলা পাথর, লক্ষ প্রতিবাদী লাশের আত্মা
পরম আশায় তোমার দিকে চেয়ে রয়।
তবু কেন এত পিছুটান,
গাইতে মানবতার গান?
মুখ ফেরাক না, সারা বিশ্ব।
তোমার কি ভয়? ওহে প্রতিবাদী-
তোমার সাথে আছে ত্যাগ, আছে দেশ প্রেম।
শত্রুর রকেটের আঘাতে আধ্যাত্মিক নেতা আল্লামা ইয়াসিনের ছিন্ন-ভিন্ন দেহ
তোমার সাথে আছে। তোমার সাথে আছে দখলদার হানাদারের কপোলে দেয়া বিদ্রোহী
কন্যা মোহাম্মদ তামীমির থাপ্পড়। আছে মানবতার সেবায় নিঃশেষে প্রাণ দেয়া রাজান-আল-নাজারের নিথর দেহ। তোমার রঙ্গ ভূমিতে ন্যায়-অন্যায়, সত্য-মিথ্যা আর সুর-অসুরের গোলিয়াথ
আর ডেভিলের এক তৈলচিত্র যেন আদৃষ্ট সর্বদা এঁকে যায়।
তোমার সাথে আছে শেষ বিচারের দিনের ন্যায় বিচারক মহান ঈশ্বর।
তবে কিসের তোমার ভয়? ওহে ফিলিস্তিন বাসী।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।