Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
১১ বৈশাখ ১৪২৬, বুধবার ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ৬:০৭ অপরাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

চলন্ত বাসে ডাকাতি : আন্তঃজেলা ডাকাতদলের ৮ সদস্য আটক


১৫ এপ্রিল ২০১৯ সোমবার, ০৪:৫৮  পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক

বহুমাত্রিক.কম


চলন্ত বাসে ডাকাতি : আন্তঃজেলা ডাকাতদলের ৮ সদস্য আটক

সাভার :সিলেট থেকে ছেড়ে আসা একটি চলন্ত বাসে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে একদল ডাকাত এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের আশুলিয়ার বাইশমাইল এলাকায় অবস্থান নেয় পুলিশ।

সিলেট থেকে ছেড়ে আসা পূর্বাশা নামের দুরপাল্লার বাসটি থামিয়ে তাতে শুরু হয় তল্লাশী। তল্লাশীর একপর্যায়ে জিজ্ঞাসাবাদে ধরা পড়ে আন্তঃজেলা ডাকাতদলের ৭ সদস্য।

এর আগে গ্রেফতার হওয়া ডাকাতদলের এক সদস্য হুমায়ুনের তথ্যের সূত্র ধরেই এ অভিযান চালানো হয়। তল্লাশী চালিয়ে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। আটককৃতদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় হত্যা ও ডাকাতিসহ একাধিক মামলা রয়েছে।
সোমবার দুপুরে আশুলিয়া থানায় সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এসব তথ্য জানানো হয়। পরে তাদের ৩ টি মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়।

গ্রেফতারকৃত ডাকাতদলের সদস্যরা হলো- গাইবান্ধার মো. শরিফুল ইসলাম, নারায়নগঞ্জের মো. শাহিনুর রহমান, রংপুরের পীরগঞ্জের তাজুল ইসলাম, ফরিদপুরের কোতয়ালীর কামরুল হাসান, নাটোরের বড়াইগ্রামের এছার উদ্দিন, নারায়নগঞ্জ রুপগঞ্জের হুমায়ন, নড়াইল লোহাগড়ার হাছানুর রহমান এবং জামালপুরের খোরশেদ আলম।

মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো: বেলায়েত হোসেন জানান, গত ৩১ মার্চ চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা এস আলম পরিবহনের একটি দুরপাল্লার চলন্ত বাসে আশুলিয়ার নবীনগরে ডাকাতির ঘটনায় এক ডাকাত সদস্যকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত ওই ডাকাতদলের সদস্যে দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে গতরাতে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা পূর্বাশা পরিবহনের একটি দুরপাল্লার বাসে আশুলিয়ার নয়ারহাটে ডাকাতির প্রস্তুতি নেয় আন্তঃজেলা ডাকাতদলের সদস্যরা। এসময় ওই ৭ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। তল্লাশী চালিয়ে উদ্ধার করা হয় আগের লুন্ঠিত মালামাল, দেশীয় অস্ত্র ও মাদক।

অভিযানে অংশ নেয়া আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মনিরুজ্জামান (পিপিএম) জানান, চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে চলন্ত বাসে ডাকাতির করে আসছিল। এদের ১০/১২ জনের দল থাকে। যেমন- গতরাতে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা পূর্বাশা পরিবহনের দুরপাল্লার বাসে ডাকাতির প্রস্তুতি হিসেবে প্রথম থেকেই টিকেট কেটে বাসে উঠে পড়ে দুই-একজন। এরপর দলের বাকী সদস্যরা বিভিন্ন সড়কে অবস্থা নিয়ে অপেক্ষা করে যাত্রী বেশে বাসে উঠার জন্য। বাস কোথায় আছে বা কতদূর এলো এসব তথ্যও দেয় হয় বাসের ভেতরে অবস্থান নেওয়া ডাকাতদলের সদস্যরা। পরে সবাই উঠে গেলে নির্জন স্থান দেখে বাসের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেয় ডাকাতরা। পরে যাত্রীদের মারধর করে মালামাল লুট করে বাস ফেলে পালিয়ে যায়।

গতরাতেও ডাকাত নেতা শাহিনুর রহমানকে পূর্বাশা বাসের ভিতর থেকে যাত্রী বেশে থাকা অবস্থায় গ্রেফতার করা হয়।

আশুলিয়ার থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ রিজাউল হক দিপু জানান, এই ডাকাত চক্রটি ঢাকা জেলা, নারায়নগঞ্জ, নরসিংদী, সিলেটসহ বিভিন্ন মহাসড়েকর দুরপাল্লার বাসে যাত্রী বেশে ডাকাতি করে। বিভিন্ন নাম করা পরিবহনের দুরপাল্লার বাসের যাত্রীদের ক্ষেত্রে ভিডিও ছবি নিয়ে থাকে। কিন্তু অন্যান্য পরিবহন তা করে না। ফলে এধরনের ঘটনা এড়াতে পরিবহন মালিক ও যাত্রীদের আরও সচেতন হতে হবে। যাত্রীদের তথ্য ও মোবাইল নাম্বার প্রয়োজনের ভোটার আইডিও সংগ্রহ করে রাখেতে পারেন।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।