Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
৭ শ্রাবণ ১৪২৬, মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০১৯, ৪:৩৬ পূর্বাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

গাজীপুরে ওসিকে প্রত্যাহার দাবী ছাত্রলীগ নেতার


১১ জুলাই ২০১৯ বৃহস্পতিবার, ১০:১৫  পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক

বহুমাত্রিক.কম


গাজীপুরে ওসিকে প্রত্যাহার দাবী ছাত্রলীগ নেতার

গাজীপুর : হত্যা মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারের অসহযোগিতাসহ নানা অভিযোগে গাজীপুর মেট্রোপলিটন সদর থানার পরিদর্শক (ওসি’র) সমীর চন্দ্র সূত্রধরের প্রত্যাহার চেয়েছেন ভুক্তভোগী মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাসুদ রানা এরশাদ।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় গাজীপুর শহরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল রোডে অবস্থিত গাজীপুর প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবী করেন। এ সময় তিনি ওসি বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলায় হয়রানি, চিহ্নিত আসামীদের গ্রেপ্তার না করা, স্থানীয় সন্ত্রাসীদের মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে অপরাধকে প্রশ্রয়দেয়সহ নানা অভিযোগ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মাসুদ রানা এরশাদ বলেন, গত ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় একাদশ সংসদ নির্বাচনের দিন তার বড় ভাই মো: লিয়াকত হোসেনকে কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। পরে মামলা বাদী জানতে পারেন গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি শাহজাহান ফকিরের মেয়ের জামাই মেহেদী হাসান নাহিদ ওরফে কসাই নাহিদ ওই হত্যাকান্ডে অস্ত্রের যোগানদাতা। কসাই নাহিদ একজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী। বিভিন্ন থানায় তার নামে বিশটি’র অধিক অস্ত্র, হত্যা, মাদক, চাঁদাবাজী মামলা রয়েছে।

নাহিদের পিতা হাসেশ মোড়ল একজন ভূমি দস্যু, মামলাবাজ প্রকৃতির লোক। মাসুদ রানা এরশাদের ভাই হত্যা মামলার আসামীদের কসাই নাহিদ তার বাড়িতে আশ্রয়-প্রশ্রয় দিচ্ছেন। কসাই নাহিদ হত্যা মামলার আসামীদের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দিয়ে ঘোষণা করেন তাদের কেউ কিছু করতে পারবে না। বিভিন্ন সময় আসামীদের নাহিদের বাসায় আশ্রয় নিতে দেখা যায়। বিষয়গুলো ওসি সমীর চন্দ্র সূত্রধরকে অবহিত করা হয় এবং ফেইসুবকে পোষ্ট করা ছবি দেখানোর পরেও তিনি কোন ব্যবস্থা নেননি। গত ৩১ মে সন্ধ্যায় হত্যা মামলা আসামী হিমেল নাহিদের বাসায় অবস্থান করছে যেনে তিনি ডিবি পুলিশকে অবহিত করেন। পরে ডিবি পুলিশ তাকে হিমেলের উপর নজর রাখতে বলেন। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই সদর থানার ওসি সমীর চন্দ্র সূত্রধর নাহিদের বাসার গেটের সামনে উপস্থি হয়ে উল্টো তাকে জেরা করতে থাকে।

পরে বিষয়টি তিনি খুলে বলেন এবং পরে তাকে বাহিরে রেখে ওসি বাড়ির ভেতরে প্রবেশ করেন। কিছুক্ষন পরে তিনি বের হয়ে জানায় ওখানে আসামী হিমেল নেই। এ সময় এরশাদ বাড়ীর ভেতরে দেখতে চাইলে ওসি নিষেধ করেন এবং তাকে চলে যেতে বলেন। নাহিদের বাসার সামনে যাওয়ার অপরাধে পরের দিন ওসি সমীর, এরশাদের নামে ডাকাতি প্রস্তুতির মামলা নিয়েছেন। এছাড়া গত ১০ মে রাতে জয়দেবপুর বাজারের মুক্তমঞ্চ এলাকায় লোকালয়ে কসাই নাহিদের উপর হামলা করা হয়। ওসি সমীর ঘটনাস্থল উপস্থিত হয়ে প্রত্যক্ষদর্শীদের জিজ্ঞাসা বাদ করেন। তদন্তে এরশাদের সংশ্লিষ্টতা না পাওয়া সত্বেও তাদের নামে মিথ্যা মামলা নেন।

এছাড়া গত কয়েকদিন আগে রাতে নাকি নাহিদকে গুলি করা হয়েছে এমন সংবাদ প্রচার হয়। পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে সিসি টিভির ফুটেজে এমন কোন আলামত খুঁজে পায়নি এবং হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তার শরীরে গুলির কোন আলামত পায়নি। এ ঘটনায় গত ৯ জুলাই এরশাদের বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা মামলা হয়। এমই ভাবে দিনের পরেরদিন ওসি সমীর চন্দ্র সূত্রধর নাহিদের টাকার কাছে হারমেনে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি ও হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেফতারের গাফলতী ও অসহযোগিতা করছেন। তাই তিনি স্থানীয় এমপি, মন্ত্রী, মেয়র, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, পুলিশের আইজিপি ও গাজীপুর মহানগরের পুলিশ কমিশনারের কাছে ওসি সমীরের প্রত্যাহরের দাবি জানিয়ে সুষ্ঠ বিচার দাবী করেন।

সংবাদ সম্মেলনে নাহিদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন এলাকার ছয়টি প্রতিষ্ঠানের অবৈধভাবে ডিস ব্যবসা দখল করে ও কর্মচারীদেরকে বিভিন্ন সময় বেধরক মারধোর অভিযোগ করেন কয়েকজন ভুক্তভোগী। ওইসব ডিস ব্যবসার মালিকগণ থানার ওসি সমীরের নিকট লিখিত অভিযোগ জানালেও কোনরকম ব্যবস্থা না নেয়ার কথা জানান।

সংবাদ সম্মেলনে এরশাদের সাথে একতত্বা প্রকাশ করে ভুক্তভোগী সুমন রাজ বর্মন, আলী হোসেন, জহিরুল হক, মমিনুর রহমান মিতু, শহীদুল আলম, মিজানুর রহমান বক্তব্য রাখেন।

বিষয়গুলো অস্বীকার করে গাজীপুর মেট্রোপলিটন সদর থানার ওসি সমীর চন্দ্র সূত্রধর বলেন, তার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ মিথ্য ভিত্তিহীন ও বানোয়াট।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।