Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
১২ বৈশাখ ১৪২৬, শুক্রবার ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১১:৫৪ পূর্বাহ্ণ
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর

ইউরোপের বিলাসবহুল ভ্রমণতরী এখন মংলায়


২৭ জানুয়ারি ২০১৯ রবিবার, ০৮:৫১  পিএম

বহুমাত্রিক ডেস্ক


ইউরোপের বিলাসবহুল ভ্রমণতরী  এখন মংলায়

ঢাকা : বিশ্বঐতিহ্য সুন্দরবন ভ্রমণে আসা ইউরোপের বিলাসবহুল ভ্রমণতরী ‘সিলভার ডিসকভারার’ (সিলভার সী ক্রুজ) এখন মংলা বন্দরে।বিশ্বের পাঁচ দেশের ৬১ জন পর্যটক নিয়ে আন্তর্জাতিক সমুদ্রগামী জাহাজটি রোববার বিকালে মংলা বন্দর জেটিতে নোঙ্গর করে।

ভারতের চেন্নাই বন্দর হয়ে মংলা বন্দরে আসা বিলাসবহুল ভ্রমণতরী সিলভার সী ক্রুজের বিদেশি পর্যটকরা সোমবার থেকে বুধবার টানা তিনদিন সুন্দরবনের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখবেন।

মংলা বন্দরের হারবার মাস্টার কমান্ডার দুরুল হুদা জানান, আজ বিকালে বিলাসবহুল জাহাজটি মংলা বন্দরের জেটিতে নোঙ্গর করে। ওই জাহাজে ৬১ জন পর্যটক এবং ৯২ জন ক্রু রয়েছে।

মংলা কাস্টমসের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা শেখ রাসেল রানা জানান, বিলাসবহুল ওই ভ্রমণতরীতে আসা ৬১ জন বিদেশি পর্যটকের কাছ থেকে সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী রাজস্ব নেয়া হয়েছে।

বাংলাদেশের ‘জার্নি প্লাস’ ও ‘পাগমার্ক ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলসের’ ব্যবস্থাপনায় ওই বিদেশি পর্যটকরা সুন্দরবন ভ্রমণ করবে।

পাগমার্ক ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলসের স্বত্বাধিকারী ও প্রধান কার্যনিবাহী মো. নজরুল ইসলাম বলেন, ‘সিলভার ডিসকভারার’ রাতে সুন্দরবনের ঢাংমারী এলাকায় এ্যাংকর করবে।

পর্যটকদের সুন্দরবন ভ্রমণের জন্য সব ধরনের লজিস্টিক সাপোর্ট দেয়া হবে জানিয়ে তিনি বলেন, পর্যটকের সাথে আটজন গাইডও দেয়া হবে।

স্থানীয় শিপিং এজেন্ট মোহাম্মদ আলী জানান, আগামী ১২ এবং ২২ ফেব্রুয়ারি আরও দু’টি বিদেশি পর্যটকদের বহর নিয়ে সিলভার সী ক্রুজ আবারও সুন্দরবন ভ্রমণে আসবে।

সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মো. মাহমুদুল হাসান জানান, বিদেশি পর্যটকরা সুন্দরবনের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখবেন। তাই তাদের নিরাপত্তায় বন বিভাগের পক্ষ থেকে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

ডিএফও মো. মাহমুদুল হাসানের দেয়া তথ্যমতে, দেশি-বিদেশি পর্যটকরা যাতে সুন্দরবন ভ্রমণে আসে এজন্য তাদের পক্ষ থেকে নানা উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

ইকোট্যুরিজমের অংশ হিসেবেই ওই বিদেশি পর্যটকরা সুন্দরবনে আসছে জানিয়ে তিনি বলেন, বিগত সময়ের চেয়ে সুন্দরবনে দেশি-বিদেশি পর্যটকদের আগমন বৃদ্ধি পেয়েছে।

ভ্রমণসূচি অনুযায়ী পর্যটকরা সোমবার ঢাংমারি ডলফিন অভয়ারণ্য, সুন্দরবনের হারবারিয়া ফরেস্ট অফিস, ওয়াস টাওয়ার, হারবারিয়ার সামনে ছোটখাল, হারবারিয়া খাল হয়ে হরমল খাল ও চরাপুটিয়া ভ্রমন করবে এবং পথিমধ্যে জেলেদের মাছ ধরার দৃশ্য দেখবেন।

পরের দিন মঙ্গলবার তিকোনা দ্বীপ, ককিলমনি খাল এবং আলোরকোল জেলে পল্লী ভ্রমণ করবেন আর তৃতীয় ও শেষ দিন বুধবার হিরনপয়েন্ট এবং ওয়াচ টাওয়ার পরিদর্শন শেষে মহেশখালী যাবেন।

ভ্রমণসূচি অনুযায়ী বৃহস্পতিবার সিলভার সী ক্রুজ ওই পর্যটকদের নিয়ে মিয়ানমারের ইয়াঙ্গুনের উদ্দেশ্যে ফিরে যাবে।

প্রসঙ্গত, এর আগে ২০১৭ সালে বিলাসবহুল ভ্রমণতরী সিলভার ডিসকভারার সফলভাবে বাংলদেশে দু’টি ক্রুজ ট্যুর সম্পন্ন করেছে। ওই বছর দু’টি ক্রুজে ১৭ দেশের ১৬২ জন বিদেশি পর্যটক সুন্দরবন এবং মহেশখালী ভ্রমণ করে।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।