Bahumatrik Logo
২৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩, শনিবার ১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ৮:৪১ অপরাহ্ণ

সৌদি ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহবান প্রধানমন্ত্রীর


০৫ জুন ২০১৬ রবিবার, ০৯:৩১  পিএম

বহুমাত্রিক ডেস্ক


সৌদি ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহবান প্রধানমন্ত্রীর

ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সৌদি আরবের ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তদের বাংলাদেশে বিনিয়োগ, ব্যবসা-বাণিজ্য, সমৃদ্ধি এবং লভ্যাংশের অংশীদার হওয়ার মাধ্যমে কোটি মানুষের জীবনমানের পরিবর্তন আনার প্রচেষ্টায় শরিক হওয়ার আহবান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যেই নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হয়েছি। ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সাল নাগাদ উন্নত সমৃদ্ধ দেশে উন্নীত হওয়ার লক্ষ্য পূরণে আমি সৌদি ব্যবসায়ী এবং উদ্যোক্তা নেতৃবৃন্দকে আমাদের দেশে বিনিয়োগ, ব্যবসা-বাণিজ্য, সমৃদ্ধি এবং লভ্যাংশের অংশীদার হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। .. সম্মিলিত উদ্যোগের মাধ্যমেই আমরা কোটি মানুষের জীবনমানের পরিবর্তন আনতে পারব।’

প্রধানমন্ত্রী এখানে আজ সকালে জেদ্দা চেম্বার্স অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্টির (জেসিসিআই) নেতৃবৃন্দের সঙ্গে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকের ভাষনে এ আহবান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বর্তমানে সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদের আমন্ত্রণে ৫ দিনের সরকারি সফরে সৌদি আরবে অবস্থান করছেন।

বৈঠকের পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

প্রধানমন্ত্রী সৌদি উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশের শিল্প খাতগুলোর মধ্যে বস্ত্র, চামড়া শিল্প, পাট, সিরামিক, পেট্রো-কেমিকেল, ফার্মাসিউটিক্যালস, শিপ বিল্ডিং, কৃষি প্রক্রিয়াজাতকরণ, প্লাস্টিক পণ্য, হালকা প্রকৌশল ও ইলেকট্রনিকস, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি, বিদ্যুৎ, জ্বালানি, পানি এবং মেরিন ও অন্যান্য অবকাঠামো প্রকল্প, হাইটেক ম্যানুফেকচারিং ও মাইক্রো প্রসেসরের মত প্রকৌশল খাতে বিনিয়োগের আহ্বান জানান।

বাংলাদেশের উদার বিনিয়োগ নীতির প্রসংগ উল্লেখ করে প্রদানমন্ত্রী বিদেশি ব্যবসায়ীদের জন্য সরকারের দেয়া সুবিধাদির প্রসঙ্গে বলেন, আইন করে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের নিরাপত্তা প্রদান, ট্যাক্স হলিডে,যন্ত্রপাতি আমদানিতে কর রেয়াত,রয়্যালটির রেমিটেন্স, শতভাগ বিদেশী বিনিয়োগ, অনিয়ন্ত্রিত প্রত্যাহার নীতি, লভ্যাংশ ও পুঁজি দেশে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার সুবিধাসহ অনেক সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী অন্যান্য প্রাপ্ত সুবিধাবলী সম্পর্কে ব্যবসায়ীদের জানান- দেশে পরিশ্রমী এবং তুলনামূলক স্বল্প বেতনে প্রশিক্ষিত জনশক্তির প্রাপ্যতা, স্বল্প খরচে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা, ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ), অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, ভারত, জাপান ও নিউজিল্যান্ডের বাজারে পণ্যের শুল্কমুক্ত ও কোটামুক্ত প্রবেশ সুবিধা-প্রভৃতি।

বৈঠকে শতভাগ রপ্তানিমুখী শিল্পের জন্য দেশে প্রায় একশ’ বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠায় তাঁর সরকারের উদ্যোগের তথ্যও তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী ।

আইটি শিল্পের জন্য সরকারের হাইটেক পার্ক গড়ে তোলার প্রসংগ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাঁর সরকার তথ্য-প্রযুক্তি শিল্পের জন্যও বাংলাদেশে একাধিক হাইটেক পার্ক স্থাপন করছে এবং এই অঞ্চলগুলোতে বিনিয়োগ করতে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের জন্য বিশেষ প্যাকেজ সুবিধা ঘোষণা করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তোলার মাধ্যমে দেশ থেকে ক্ষুধা,দারিদ্রমুক্ত করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ এখন ২০২১ সালের মধ্যে ডিজিটালাইজড জ্ঞান ভিত্তিক মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সাল নাগাদ উন্নত সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে গড়ে তোলার পথে রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী তৈরী পোষাক খাতে দেশের ব্যাপক অগ্রগতির প্রসংগ উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশ তৈরি পোশাক খাতে (আরএমজি) অভাবনীয় সাফল্য অর্জন করেছে এবং আমরা এখন বিশ্বে দ্বিতীয় বৃহত্তম তৈরি পোশাক রপ্তানিকারক দেশ। এই শিল্পে বর্তমানে প্রায় ৫০ লাখ শ্রমিক কর্মরত রয়েছেন। যার মধ্যে ৯০ শতাংশই নারী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, তৈরী পোষাক খাতের মতই ফার্মাসিউটিক্যালস, তথ্যপ্রযুক্তি এবং জাহাজ নির্মাণ শিল্পেও আমাদের প্রভূত উন্নয়ন সাধিত হয়েছে।

তিনি বলেন, আমাদের ওষুধ শিল্প দেশের শতকরা ৯৭ ভাগ আভ্যন্তরীণ চাহিদা মিটিয়ে বিশ্বের ৯২টি দেশে রপ্তানী হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, গার্টেনারের মতে- সফটওয়্যার ও আইটি সার্ভিসের জন্য বিশ্বের ৩০টি শীর্ষস্থানীয় দেশের মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। বাংলাদেশের তৈরী হাজারও সফটওয়্যার এপ্লিকেশন এখন আইফোন, স্যামসাং গ্যালাক্সি এবং ব্লাকবেরি ফোনে ব্যবহৃত হচ্ছে।

শেখ হাসিনা বলেন, গত বছর আমাদের আইটি কোম্পানিগুলো এবং ফ্রিল্যান্স আইটি পেশাজীবীরা ৩৬০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করেছেন। প্রতি বছর প্রায় ২০ হাজার আইটি গ্রাজুয়েট এই খাতে যোগ দিচ্ছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের নির্মাতারা বিশ্বমানের হালকা ও মাঝারি সামুদ্রিক জাহাজ নির্মাণ করে বিশ্বের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়েছেন। এই শিল্পের ২০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের আন্তর্জাতিক বাজারের ১ শতাংশ শেয়ার এখন বাংলাদেশের দখলে।

প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ এবং সৌদি আরবের মধ্যকার চমৎকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে বলেন,‘বাংলাদেশ এবং সৌদি আরবের মধ্যে চমৎকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক বিদ্যমান। এই সম্পর্ক গড়ে উঠেছে একই ধর্মীয় বিশ্বাস,সংস্কৃতি, মূল্যবোধ এবং পরষ্পরের প্রতি আস্থার ওপর ভিত্তি করে। ৭ম শতকে আরব ব্যবসায়ীরা যখন প্রথম বাংলাদেশের বন্দরনগরী চট্টগ্রামে আগমন করেন তখন থেকেই এই বাণিজ্য সম্পর্কের সূচনা।’

তিনি বলেন, ‘সাম্প্রতিক বছরগুলোতে দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক ব্যবসা-বাণিজ্যের পরিমাণ অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে, দুই দেশের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্যের পরিমাণ ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ১ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যেতে পারত। দ্বিপাক্ষিক ব্যবসা-বাণিজ্য বৃদ্ধির এখানে ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে।

এ সময় জেসিসিআই ভাইস চেয়ারম্যান মাজেন এম ব্যাটারজি তাঁর বক্তৃতায় দ্বিপাক্ষিক ব্যবসা-বণিজ্য বৃদ্ধির ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

সৌদি আরবের ব্যবসায়ীদের জন্য বাংলাদেশ ‘সেকেন্ড হোম’ হতে পারে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘ব্যবসার সুযোগ-সুবিধা খতিয়ে দেখার জন্য জেসিসিআই বাংলাদেশে একটি ব্যবসায়ী দল প্রেরণ করবে।’

সৌদি আরবের ভিশন ২০৩০’র প্রসংগ উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই সময়ের মধ্যে আন্তর্জাতিক ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধির ওপর গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে।

দুই দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যের পরিমান পর্যাপ্ত নয় উল্লেখ করে জেসিসিআই সহ সভাপতি বলেন, এর পরিমান বাড়ানো প্রয়োজন এবং দুই দেশের ব্যবসায়ীদের এ বিষয়ে একযোগে কাজ করার সুযোগ রয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই সফরের মধ্য দিয়ে দুই দেশের বোঝাপড়া আরো বৃদ্ধি পাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে পররাষ্ট্র মন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো.আবুল কালাম আজাদ, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সালমান এফ রহমান, এফবিসিসিআই সভাপতি আব্দুল মাতলুব আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

নির্মাণ শিল্পে প্রকৌশলী এবং স্থাপত্যবিদ সহ দক্ষ জনশক্তি সরবরাহে বৈঠকে সৌদি আরবের বাওয়ানি গ্রুপ এবং বাংলাদেশের সেনা কল্যাণ সংস্থার মধ্যে একটি সমঝোতা স্বারকও স্বাক্ষরিত হয়।

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. আবুল কালাম আজাদ এবং বাওয়ানি গ্রুপের মহাব্যবস্থাপক ফখীর আল সাওয়াফ উভয় পক্ষের পক্ষে স্বারকে স্বাক্ষর করেন।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আন্তঃদেশীয় সম্পর্ক -এর সর্বশেষ