Bahumatrik Logo
২৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩, শনিবার ১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ৮:৩২ অপরাহ্ণ

ভারতের আন্ত:নদী সংযোগ প্রকল্পের বিরোধিতায় পরিবেশবিদরা


২৩ মে ২০১৬ সোমবার, ০১:৩৯  এএম

বহুমাত্রিক ডেস্ক


ভারতের আন্ত:নদী সংযোগ প্রকল্পের বিরোধিতায় পরিবেশবিদরা
ছবি-সংগৃহীত

ঢাকা : বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাংলাদেশের মাটি, পানি ও পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর বৃক্ষের উচ্ছেদ করে-দেশিয় বনজ, ফলজ, ভেষজ, ওষুধি এবং বিপন্ন উদ্ভিদগুলো লাগানোর তাগিদ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

সুন্দরবন রক্ষার ক্ষতিকর সব ধরণের তৎপরতা বন্ধের দাবির সাথে ভারতের আন্ত:নদী সংযোগ প্রকল্পেরও তীব্র বিরোধিতা করেন তারা। 

রোববার আর্ন্তজাতিক জীববৈচিত্র্য দিবসে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ নদী বাঁচাও আন্দোলনের উদ্যোগে মানববন্ধন ও নাগরিক সমাবেশে এসব দাবি তুলে ধরেন পরিবেশবিদ।

সংগঠনের সভাপতি অধ্যাপক মোঃ আনোয়ার সাদতের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এড. মো: আনোয়ার হোসেনের পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন, জল ও পরিবেশ ইন্স্টিটিউটের মহাপরিচালক প্রকৌশলী ম, ইনামুল হক, বাপা’র মহাসচিব ডা. আব্দুল মতিন, বাংলাদেশ নদী বাঁচাও আন্দোলনের সহ-সভাপতি বেলাল আহমেদ, ফেডরিক মুকুল বিশ্বাসসহ অন্যরা।

সমাবেশে পরিবেশবিদরা বলেন, পরিবেশের জন্য বিপদজ্জনক ইউক্যালিপ্টাস, ম্যালেরিয়া, আকাশমণি ইত্যাদি বৃক্ষ মানুষ ও পরিবেশের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর, তাই এসব গাছ লাগানো থেকে বিরত থাকতে হবে। কেননা এ সব গাছ সমূহ মাটির গভীর থেকে প্রচুর পানি টেনে নেয়। ফলে আশেপাশে অন্য কোন ফসল হতে পারে না শুধু তাই নয় এদের পাতা ও ফুলের রেণু প্রানীদেহের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর, যার ফলে কোন পাখি এই সব গাছে বাসাও বাঁধে না।

বক্তারা অভিযোগ করেন, সুন্দরবনে শুধু এপ্রিলেই ৪ বার পরিকল্পিত ভাবে আগুন লাগানা হয়েছে, ৪ দফা পুড়েছে ১২ একর বনভুমি। পুড়ে ছাই হয়েছে উদবিড়ালল, কচ্ছপ, গুইসাপসহ অনেক বন্য প্রাণী।

সম্প্রতি ভারতের পানি সম্পদম ওমা ভারতীর আন্ত:নদী সংযোগ প্রকল্পের অংশ হিসেবে ৩০ টি কৃত্রিম খালের মাধমে ব্রক্ষপুত্র, তিস্তা, করতোয়ার পানি ভারতের মধ্য প্রদেশে নেওয়ার সর্বনাশী পরিকল্পনার তীব্র প্রতিবাদ জানান পরিবেশবিদরা।

 

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

প্রকৃতিপাঠ -এর সর্বশেষ