Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
১ পৌষ ১৪২৫, রবিবার ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ৬:০৪ পূর্বাহ্ণ
Globe-Uro

হাওর অঞ্চলে টেকসই উন্নয়ন প্রয়োজন : অর্থ প্রতিমন্ত্রী


১৯ মার্চ ২০১৮ সোমবার, ০২:০০  এএম

জাহাঙ্গীর আলম ভুঁইয়া, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

বহুমাত্রিক.কম


হাওর অঞ্চলে টেকসই উন্নয়ন প্রয়োজন : অর্থ প্রতিমন্ত্রী
ছবি : বহুমাত্রিক.কম

সুনামগঞ্জ : অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, এমপি বলেছেন, হাওর অঞ্চলে আরো উন্নয়ন প্রয়োজন, সে জন্য হাওর অঞ্চলে টেকসই উন্নয়ন পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন প্রয়োজন।

হাওর অঞ্চলের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে উন্নয়নের মূলধারার সাথে সম্পৃক্ত করার কর্মকৌশল প্রণয়নের লক্ষ্যে পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ)`র আয়োজনে হাওর সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সুনামগঞ্জ জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার শান্তিগঞ্জ এফআইভিডিবির কনফারেন্স হলে দিনব্যাপি এই সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশের হাওর অঞ্চলের ব্যাপক পরিবর্তন করেছে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার। এ সরকারের আমলেই উন্নয়নের মহাসড়কে পৌছে গেছে বাংলাদেশ। আজ আমরা স্বল্প আয়ের দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশ হিসাবে জাতিসংঘের স্বীকৃতি পেয়েছি। বিশ্বের মানুষ এখন বাংলাদেশকে অনুস্বরণ করে।

তিনি বলেন, হাওর অঞ্চলে আরো উন্নয়ন প্রয়োজন, সে জন্য হাওর অঞ্চলে টেকসই উন্নয়ন পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন প্রয়োজন। বিশেষ করে সুনামগঞ্জের মানুষ হাওর অঞ্চলে বাস করেন।এখানে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ ব্যাবস্থার অনেক পরিবর্তন হয়েছে।

এম এ মান্নান বলেন, গত বছরের আগাম বন্যায় সুনামগঞ্জের মানুষ একটি ধানও ঘরে তুলতে পারেনি। কিন্তু সুনামগঞ্জের মানুষ এবছর না খেয়ে মরেনি। আওয়ামী লীগ সরকার সবার খাওয়ার ব্যবস্থা করেছে। বিভিন্ন ভাবে কৃষকদেরকে পূনর্বাসন করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, যারা জলমহাল ইজারা নেয় তারা উপকার ভোগী না। হাওর পাড়ের জেলেদের ব্যবহার করে একশ্রেণীর মানুষ বিভিন্ন ভাবে এটা ইজারা নিয়ে জলমহাল শুকিয়ে মাছ ধরে যা আইনত অপরাধ। হাওর অঞ্চলে প্রধান সমস্যা হচ্ছে জলমহাল ইজারা প্রথা। এটাকে উন্মুক্ত করে দিতে হবে। আমরা এখন কৃষকের ফলানো ধান তুলতে হাওরে, হাওর রক্ষা বাঁধ নির্মাণ করছি ও কিছু কিছু নদী খনন কাজ করে যাচ্ছি। কিন্তু এটাকে টেকসই উন্নয়নের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। তাই বর্তমান সরকার সে কাজটিই করে যাচ্ছে।

প্রথম অধিবেশনে রোববার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার শান্তিগঞ্জ এফআইবিডিভি ট্রেনিং সেন্টারে পিকেএসএফ`র পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক এমপি, সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন এমপি, সুনামগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য ড. জয়া সেনগুপ্তা এমপি, সুনামগঞ্জ-মৌলভীবাজার সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য অ্যাড. শামছুন নাহার বেগম শাহানা রব্বানী এমপি, পিকেএসএফ`র ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আব্দুল করিম।

সম্মেলনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. সাবিরুল ইসলাম। সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, পিকেএসএফ`র উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (প্রশাসন) ড. মো. জসীম উদ্দিন, বাংলাদেশ হাওর ও জলাভ‚মি উন্নয়ন অধিদপ্তরের পরিচালক (জলাভ‚মি) ড. মো. রুহুল আমিন সহ প্রমূখ।
পরে বিকাল ২টা ৪৫ মিনিটে ২য় অধিবেশন শুরু হয়। ২য় অধিবেশনে পিকেএসএফ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ আব্দুল করিমের সভাপতিত্বে, সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ডঃ কাজী খলীকুজ্জামান আহমদ।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সেন্টার ফর ন্যাচারাল রিসোর্স ষ্টাডিস এর নির্বাহী পরিচালক ডঃ এম মোখলেছুর রহমান, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ব বিদ্যালয়ের নৃতত্ত বিভাগের অধ্যাপক একে এম মাজহারুল ইসলাম, ক্যাম্পেপইন ফর সাসটেইনেবল রুরাল লাইভলিহুডস এর সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল হক মুক্তা, মানবাধিকার উন্নয়ন কেন্দ্র পদক্ষেপ এর নির্বাহী পরিচালক ইকবাল আহাম্মদ, অ্যাডভোকেসি টেকনোলজি ও পার্টনারশিপ ব্র্যাক এর পরিচালক কে এ এম মোরশেদ খান, বাংলাদেশের হেড অব আরবান প্রোগ্রাম, কনসার্ন ও্যাইড এর জাকির আহাম্মদ সহ প্রমূখ।

সভায় সরকারি-বেসরকারি সমন্বিত উদ্যোগের মাধ্যমে হাওরে বসবাসরত জনগোষ্ঠীর টেকসই উন্নয়ন. চ্যালেঞ্জ ও সম্ভাবনা শীর্ষক কারিগরি সেশন অনুষ্ঠিত হয়।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।