Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
৫ আশ্বিন ১৪২৫, শুক্রবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১:৪৭ পূর্বাহ্ণ
Globe-Uro

স্বচ্ছ ঢাকা গড়তে শিক্ষার্থীদের সচেতন করতে হবে : মেয়র খোকন


১৩ মার্চ ২০১৮ মঙ্গলবার, ০৬:৪২  পিএম

বহুমাত্রিক ডেস্ক


স্বচ্ছ ঢাকা গড়তে শিক্ষার্থীদের সচেতন করতে হবে : মেয়র খোকন

ঢাকা : ‘স্বচ্ছ ঢাকা’ গড়তে শিক্ষার্থীদের পরিচ্ছন্নতা সম্পর্কে সচেতন করে তুলতে শিক্ষকদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।

তিনি শহরকে পরিচ্ছন্ন রাখার লক্ষ্যে পরিচ্ছন্নতা, পরিবেশ, প্রতিবেশ ইত্যাদি বিষয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এ্যাসেম্বলিতে পরামর্শমূলক বক্তব্য দিয়ে শিক্ষকদের প্রতি অনুরোধ জানান। আজ বেইলী রোড অফিসার্স ক্লাবে ‘স্বচ্ছ ঢাকা’ অভিযান সম্পর্কে নগরবাসীকে সচেতন করে তুলতে রাজধানীর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানদের নিয়ে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় মেয়র এ আহবান জানান।

কর্পোরেশনের ৫টি অঞ্চলের ৪৫০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগন সভায় অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত শিক্ষকরা ‘স্বচ্ছ ঢাকা’ গড়ে তুলতে মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকনের আহবান শিক্ষার্থীদের মাঝে পৌঁছে দেয়ার অঙ্গীকার করেন। কয়েকজন শিক্ষক ব্যবসায়ীদের কর্পোরেশনের ট্রেড লাইসেন্স দেয়ার সময় দোকানে ওয়েস্ট বাস্কেট রাখা বাধ্যতামূলক করার প্রস্তাবসহ কিছু পরামর্শ তুলে ধরেন।

মেয়র খোকন বলেন, ‘৪২ স্কোয়ার কিলোমিটার ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় এক কোটি ৫০ লাখ মানুষের বসবাস। এর মধ্যে আশেপাশের জেলার মানুষদের যাতায়াত রয়েছে।

পৃথিবীর সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা এই ঢাকা। অতিরিক্ত জনসংখ্যার জন্য পরিষ্কার রাখতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। যতক্ষণ পর্যন্ত নাগরিকরা সচেতন না হয়ে ওঠেন, ততক্ষণ পর্যন্ত নগর পরিষ্কার রাখা কঠিন ব্যাপার। এ জন্য সবাইকে সচেতন করার চেষ্টা করছি।’

তিনি বলেন, ‘নগরটাকে কেন আমরা ঘর ভাবছি না। নিজের ঘর সবাই পরিস্কার রাখছি। কিন্তু প্রতিনিয়ত শহকে অপরিষ্কার করছি। ৫০ শতাংশ মিনি ডাস্টবিন চুরি হয়েছে, ভেঙ্গে গেছে।

অনেকে আবার এসব ডাস্টবিন নিয়ে ফুলের টপ বানিয়েছেন। কোটি টাকা দিয়ে বাড়ি বানালেও রাবিশ ডাম্পিং স্টেশনে না ফেলে যত্রতত্র ফেলে নাগরিক ভোগান্তি ঘটান। এমন কী টয়লেটের লাইট বক্স ভেঙ্গে লাইট চুরে করে নিয়ে যাচ্ছেন। নাগরিকরা যদি এমন হন, তাহলে কিভাবে শহর পরিষ্কার রাখবো? তাহলে একজন মেয়র কিভাবে শহর পাহারা দিবে?’

তিনি সকলকে ভাবনার এবং মানসিকতার পরিবর্তন ঘটানোর আহবান জানিয়ে বলেন, সকলে যেন এ শহরকে তার নিজের বলে ভাবেন।

সাঈদ খোকন বলেন, ডিএসসিসি এলাকায় ২০ লাখ দোকান রয়েছে। এই দোকানের মালিকরা সকাল ১০টার দিকে দোকান পরিস্কার করে ময়লা রাস্তায় ফেলে। তারা যদি রাতে দোকান পরিষ্কার করে যায়, তাহলে ফজরের সময় ডিএসসিসির পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা ওই ময়লা নিয়ে যেতে পারে।

অনুষ্ঠানে কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলাল, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপক এয়ার কমোডোর সফিউল আলম, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বিগ্রেডিয়ার জেনারেল শেখ সালাহউদ্দিন, শিক্ষা কর্মকর্তা মাইনুল হোসেন, অধ্যক্ষ বর্নালী হোসেন, শিক্ষক রিয়াজ পারভেজ, কাউন্সিলর মোশাররফ হোসেন, আবু আহমেদ মন্নাফী ও মোস্তফা কামাল বক্তব্য রাখেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মদিন উপলক্ষে ‘স্বচ্ছ ঢাকা’ নামে ১৭ থেকে ২৩ মার্চ পর্যন্ত পরিচ্ছন্ন সপ্তাহ পালন করবে ডিএসসিসি।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।