Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
৭ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, বুধবার ২১ নভেম্বর ২০১৮, ৮:০৩ অপরাহ্ণ
Globe-Uro

শিক্ষা বিস্তারেও সচেষ্ট মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী


০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ মঙ্গলবার, ০১:৫৬  এএম

শেখ হেদায়েতুল্লাহ, নিজস্ব প্রতিবেদক

বহুমাত্রিক.কম


শিক্ষা বিস্তারেও সচেষ্ট মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

খুলনা : আজীবন শিক্ষকতার সাথে জড়িত মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দের ঐকান্তিক চেষ্টায় তাঁর নিজ নির্বাচনী এলাকায় দুটি কলেজকে জাতীয়করণ করতে পেরেছেন। আরও কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করনের অপেক্ষায় রয়েছে।

তিনি এলাকার বিভিন্ন সেক্টরে উন্নয়নের পাশাপাশি শিক্ষা বিস্তারে বিশেষ ভূমিকা রেখে চলেছেন। তিনি ডুমুরিয়ায় প্রতিষ্ঠিত করেছেন ভেটেরিনারি ট্রেনিং ইন্সটিটিউট। আরও কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রীর সাথে যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছেন বলে জানান তিনি।

খুলনা- ৫ আসনের সংসদ সদস্য নারায়ন চন্দ্র চন্দ তৃতীয় দফায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওযার পর তার নির্বাচনী এলাকায় ব্যপক উন্নয়ন মূলক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করেছেন। এরমধ্যে শিক্ষা বিস্তারে তাঁর ভূমিকা রয়েছে ব্যাপক। তিনি ডুমুরিয়া ফুলতলা বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বহুতল আধুনিক দৃষ্টিনন্দন ভবন নির্মাণের ব্যবস্থা করেছেন।

শাহপুর মধুগ্রাম কলেজ, ফুলতলা মহিলা কলেজ জাতীয়করণ করা হয়েছে। ডুমুরিয়া উপজেলার শাহপুরে ভেটিরিনারি ট্রেণিং স্থাপনের কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে। ডুমুরিয়া সদরের পাশে প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে সরকারী ভোকেশনাল সেকেন্ডারী স্কুল। ইতোমধ্যে জমি অধিগ্রহণের কাজ শেষ হয়েছে।

শাহপুর মধূগ্রাম কলেজের অধ্যক্ষ মো: আমিনুর রহমান বলেন, ডুমুরিয়াবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি ছিল ডুমুরিয়ায় একটি কলেজ সরকারীকরণের। সেই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে স্থানীয় সংসদ সদস্য মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় কলেজটি জাতীয়করণ করা হয়েছে। শাহপুর মধূগ্রাম কলেজটি ১৯৬৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। 

১৯৭২ সালে এটি একাডেমিক স্বীকৃতি ( প্রশাসনিক অনুমোদন) পায়। বর্তমানে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তিন সহস্রাধিক শিক্ষার্থী রয়েছে। বিভিন্ন বিষয়ের শিক্ষক রয়েছেন ৫৭ জন, তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী রয়েছে ১৪ জন। কলেজে বাংলা ও অ্যাকাউন্টিং বিষয়ে স্নাতক, উচ্চ মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা (বিএম শ্রেণী) , উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাক্রম চালু রয়েছে। কলেজ ক্যাম্পাসটি ১১ একর জমির উপর স্থাপিত।

নারী শিক্ষা বিস্তারে প্রধানমন্ত্রীর বিভিন্ন পদক্ষেপের অংশ হিসেবে জাতীয়করণ করা হয়েছে ফুলতলা মহিলা কলেজটিকে। এই কলেজটিতে ১১ শয়ের মত ছাত্রী রয়েছে। দুটি বিষয়ে সন্মান কোর্স চালু রয়েছে। এইচ এসসির ফলাফল আশাব্যঞ্জক।

সরকারী ফুলতলা মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ সমীর কুমার ব্রহ্ম্য বলেন, খুলনা-৫ আসনের সংসদ সদস্য মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ শিক্ষাবান্ধব ব্যক্তি। তিনি শিক্ষাজীবন শেষ করার পর্ব থেকেই শিক্ষকতা পেশার সাথে যুক্ত ছিলেন। তার ঐকান্তিক চেষ্টায় ফুলতলা মহিলা কলেজটি জাতীয়করন করা হয়েছে। বিভিন্ন বিষয়ের শিক্ষক রয়েছেন ৩৫ জন, তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী রয়েছে ১৩ জন। কলেজটি প্রতিষি।ঠত হয় ১৯৯০ সালে। কলেজটিতে জমির পরিমাণ তিন একর ৫২ শতক।

স্থানীয় সংসদ সদস্য ও মন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ বলেন, ডুমুরিয়ার সবচেয়ে প্রাচীনতম কলেজ শাহপুর মধুগ্রাম কলেজ। সেকারণে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কলেজটি জাতীয়করণ করা হয়েছে। তিনি জানান, ২০১৫ সালের ৬ মে এ সংক্রান্ত আবেদনে ব্যক্তিগতভাবে ডিও লেটার দিয়েছিলাম। তার প্রায় আড়াই মাস পর কলেজটি জাতীয়করণের ঘোষণা দেয়া হয়। তিনবছর পর ২০১৮ সালে ৮ আগষ্ট সেই ঘোষনার বাস্তব রুপ নিল। এছাড়া ফুলতলা মহিলা কলেজটিও জাতীয়করণ করা হয়েছে।

মন্ত্রী জানান, ডুমুরিয়া সদরের ডুমুরিয়া কলেজ, শহীদ স্মৃতি মহিলা মহাবিদ্যালয়, ডুমুরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়, বান্দা কলেজিয়েট স্কুল, চুকনগর কলেজ ও চুকনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি যাতে দ্রুত জাতীয়করণ করা হয় এ জন্য প্রধানমন্ত্রীর সাথে ব্যক্তিগতভাবে যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছি।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।