Bahumatrik Multidimensional news service in Bangla & English
 
৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, বুধবার ২২ নভেম্বর ২০১৭, ৪:৪৮ অপরাহ্ণ
Globe-Uro

রূপসার তীরে প্রাণের উৎসবে মেতেছিল হাজারো মানুষ


১৫ অক্টোবর ২০১৭ রবিবার, ০২:০৯  এএম

শেখ হেদায়েতুল্লাহ, নিজস্ব প্রতিবেদক

বহুমাত্রিক.কম


রূপসার তীরে প্রাণের উৎসবে মেতেছিল হাজারো মানুষ
ছবি : বহুমাত্রিক.কম

খুলনা : মাঝি-মাল্লাদের ‘মারো টান হেইয়ো, জিতেই যাব হেইয়ো, ইনশাল্লাহ হেইয়ো’ এই ধরণের সুরেলা রব, আর হাজার হাজার দর্শকের করতালিতে আনন্দ-উচ্ছ্বাসের মধ্য দিয়ে বিভাগীয় এবং শিল্প ও বন্দর নগরী খুলনায় হয়ে গেল গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা।

শনিবার রূপসী রূপসা নদীতে অনুষ্ঠিত হয় ১২তম আকর্ষণীয় এই নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা দেখতে নদীর দু’ধারে মানুষের ঢল নেমেছিল। মোবাইলফোন কোম্পানি গ্রামীণফোনের সহযোগিতায় নগর সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।

তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ এ নৌকা প্রতিযোগিতায় বড় গ্রুপে খুলনার কয়রা উপজেলার ‘সুন্দরবন টাইগার’ চ্যাম্পিয়ন, তেরখাদা উপজেলার ভাই ভাই জলপুরি প্রথম রানার আপ ও কয়রা উপজেলার ‘আল্লাহ ভরসা’ দ্বিতীয় রানার আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করে। এছাড়া ছোট গ্রুপে কয়রা উপজেলার‘ সোনার তরী’ চ্যাম্পিয়ন, সাতক্ষীরার তালা উপজেলার ‘জয় মা কালী’ প্রথম রানার আপ ও পাইকগাছা উপজেলার ‘জয় মা ঐশ্বর্য্য’ দ্বিতীয় রানার আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করে।

দুপুর আড়াইটায় রূপসা নদীর এক নম্বর কাস্টম ঘাট থেকে নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার শুরু হয়। এর আগে কাস্টমঘাটে বাইচের উদ্বোধন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিজান। প্রায় তিন কিলোমিটার দূরে খান জাহান আলী ব্রিজে গিয়ে এ প্রতিযোগিতা শেষ হয়। এ প্রতিযোগিতা মোট তিনবার অনুষ্ঠিত হয়।

তরুণ-তরুণী, নারী শিশুসহ হাজার হাজার মানুষ এ প্রতিযোগিতা উপভোগ করেন। অনেকে ছোট ছোট নৌকা ও ট্রলার ভাড়া করে নদী ঘুরে ঘুরে নৌকা বাইচ দেখেন। নৌকাবাইচ উপলক্ষে রূপসা নদীর দু’পাড় এবং আশেপাশের এলাকা মেতে ওঠে প্রাণের উৎসবে। আবার অনেকে মেতে ওঠেন সেলফি উৎসবে।

এদিকে, নৌকা বাইচ উপলক্ষে বেলা সাড়ে ১১টায় নগরীতে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি মহানগরীর শিববাড়ির মোড় থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে শহীদ হাদিস পার্কে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় শোভাযাত্রার শোভা বর্ধনে ঘোড়ার গাড়ি, গরুর গাড়ি ও প্রতীকী নৌকা নিয়ে মাঝি-মাল্লারা অংশগ্রহণ করেন।

এবারের প্রতিযোগিতায় কয়রা, পাইকগাছা, তেরখাদা, কালিয়া, নড়াইল থেকে ১২ টি বড় এবং ১০ টি ছোট বাইচ দল অংশগ্রহণ করে। এছাড়াও গোপালগঞ্জ, মাদারিপুর ফরিদপুর এলাকার ৬ টি বাচারি নৌকা নিয়ে একটি বিশেষ দল তৈরি করা হয়েছিল।

বড় দলের প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করে এক লাখ টাকা জিতে নেয় কয়রা উপজেলার সুন্দরবন টাইগার। প্রথম রানার আপ হিসেবে ৬০ হাজার টাকা পান তেরখাদা উপজেলার ভাই ভাই জলপরী। আর দ্বিতীয় রানার আপ পুরস্কার ৩০ হাজার টাকা পান গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ার সোনার তরী।

ছোট গ্রুপ প্রথম হয়ে ৫০ হাজার টাকা পুরস্কার পান কয়রার সোনার তরী । দ্বিতীয় বিজয়ী দল পাইকগাছার রিয়া নৌকা বাইচ দল পান ৩০ হাজার টাকা। আর তৃতীয় স্থান অধিকারী দল সাতক্ষীরার জয় মা কালী -২ পান ২০ হাজার টাকা।

বিশেষ বাচারি দলের প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করে কোটালিপাড়ার গোপালগঞ্জ মা গঙ্গা-১ পঞ্চাশ হাজার টাকা জিতে নেয় । প্রথম রানার আপ হিসেবে ৩০ হাজার টাকা পান রাজড়, মাদারিপুরের মা-দুর্গা (হারেজ)। আর দ্বিতীয় রানার আপ পুরস্কার ২০ হাজার টাকা পান কোটালিপাড়ার গোপালগঞ্জ সোনার তরী।

প্রতিযোগিতায় বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন সিনিয়র সহকারী সচিব বিল্লাল হোসেন খান, শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক অফিসার এস কে এম তাসাদুজ্জামান, বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির ক্রীড়া সম্পাদক খালেক শিকদার, প্রচার সম্পাদক মিজানুর রহমান জিয়া, কে ডি এস সদদ্য মো. মোতালেব মিয়া ও সমাজ সেবক মনিরুজ্জামান সাগর।

সন্ধ্যায় রূপসা ঘাটে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সঙ্গীত শিল্পী ঐশী, খুলনার ক্ষুদে গানরাজ শিল্পী রাতুল ও স্থানীয় অন্যান্য শিল্পীদের অংশগ্রহণে সংগীত পরিবেশন করা হয়।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

BRTA
Bay Leaf Premium Tea
Intlestore

শিল্প-সংস্কৃতি -এর সর্বশেষ

Hairtrade