Bahumatrik Multidimensional news service in Bangla & English
 
৭ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৬:০৬ পূর্বাহ্ণ
Globe-Uro

ভালুকায় বিদ্যুত সংযোগের নামে ২০ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ


০৮ আগস্ট ২০১৭ মঙ্গলবার, ০৩:১১  পিএম

সাদেকুর রহমান সোহাগ, ভালুকা প্রতিনিধি

বহুমাত্রিক.কম


ভালুকায় বিদ্যুত সংযোগের নামে ২০ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ

ময়মনসিংহ : বিনামূল্যে শতভাগ পল্লী বিদ্যুতায়ন প্রকল্পের আওতায় ভালুকা উপজেলায় ৯ শত কিলোমিটার লাইনে সংযোগ দিতে প্রায় ২ হাজার ৬শ’ গ্রাহকের কাছ থেকে ২০ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে একটি দালাল চক্র।

বিদ্যুৎ বিভাগের এক শ্রেণির দূর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারী, কতিপয় ইলেক্ট্রিশিয়ান ও অসাধু ঠিকাদারদের যোগসাজসে দালালদের একটি চক্র গ্রামের সহজ সরল গ্রাহকদের কাছ থেকে কৌশলে ওইসব টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

জানা যায়, ওই চক্রটি তিন বছর ধরে বিদ্যুত দেয়ার কথা বলে এলাকার লোকদের কাছ থেকে মিটার প্রতি ১০-১৫ হাজার টাকা বিভিন্ন কিস্তিতে হাতিয়ে নেয়। গেল তিন বছরে কোথাও কোথাও খুঁটি পুতা হয়েছে, কোথাও ১১ হাজার বোল্টের তার টানানো হয়েছে, কোথাও সার্ভিস তার এমনকি কিছু কিছু জায়গায় মিটারও দেয়া হয়।

উপজেলার ডাকাতিয়া ইউনিয়নের উত্তর আকালিয়াপাড়ায় গিয়ে দেখা গেছে, মিটার পর্যন্ত তার টানানো হয়েছে, গত ঈদের আগে মিটার লাগানো হবে বলে ১৩-১৫ হাজার টাকা নেয়া হলেও মিটার দেয়নি। ওই এলাকার গ্রাহক গাজী আব্দুল মান্নান জানান, তার কাছ থেকে ১৩ হাজার টাকা নেয়া হয়েছে ঈদের আগে মিটার দিবে বলে, কিন্তু ঈদের পর প্রায় দেড় মাস চলে গেলেও মিটার আজও মিটার দেয়া হয়নি। একই অভিযোগ ওই এলাকার আজাহার আলী, হায়েত আলী, সোহরাব, ফাতেমা, আলম, বাহাদুর, সাহেদ আলী ও শাহেনুরের।

অন্যদিকে মল্লিকবাড়ী ইউনিয়নের সোনাখালী মোড় থেকে ইন্তারঘাট হয়ে ছিটালপাড়া পর্যন্ত ১৯ কিলোমিটার বিদ্যুত লাইন করে দেয়ার কথা বলে রায়হান নামে এক ব্যক্তি মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বলে অভিযোগ ওই এলাকার গ্রাহকদের।

অপরদিকে রাজৈ ইউনিয়নের হারারটেক নামক এলাকায় আড়াই কিলোমিটার সংযোগ দিতে জনৈক সওদার মিয়া নামে এক ব্যক্তি ৮০ থেকে ৯০ জন গ্রাহকের কাছ থেকে ১৩ হাজার টাকা করে প্রায় ১২ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। একই ইউনিয়নের রাজৈ বটতলা থেকে দেওতি বিলের পাড় পর্যন্ত দুই কিলোমিটার সংযোগের জন্য ৬০ জন গ্রাহকের কাছ থেকে জনৈক বুলবুল, এমরান দেড় কিলোমিটার সংযোগের ৫০জন গ্রাহকসহ উড়াহাটীতে তিন কিলোমিটারে ৮০জন গ্রাহকের কাছ থেকে, জামিরাপাড়া সাড়ে তিন কিলোমিটার ৯০ জন গ্রাহকের কাছ থেকে একই হারে টাকা হাতিয়ে নেয়া হয়েছে।

তাছাড়া লাহাবর গ্রামে জনৈক মফিজ উদ্দিন নামে এক ব্যক্তি দেড় কিলোমিটার সংযোগের জন্য ৫০ গ্রাহকের কাছ থেকে, তারাবর গ্রামে মজিবর নামে এক ব্যক্তি সাড়ে তিন কিলোমিটার লাইনের জন্য ৯০ জন গ্রাহকের কাছ থেকে একই হারে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।

ময়মনসিংহ পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি-২ এর জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) মো. জহিরুল ইসলাম জানান, ২০১৬-২০১৭ অর্থ বছরে ভালুকায় বিনামূল্যে শতভাগ বিদ্যুতায়ন প্রকল্পের আওতায় ৬শ’ ৬৮ কিলোমিটার বিদ্যুত সরবরাহের কাজ হওয়ার কথা রয়েছে এবং ৩৩ হাজার ও ১১ হাজার ভোল্ডের সঞ্চালন লাইনের কাজ প্রায় শেষ হলেও কোথাও কোথাও ২২০ বোল্টের কাজ ও সার্ভিস লাইনের কাজ এখনো চলমান আছে। এতে প্রায় ২৬ হাজার গ্রাহক বিদ্যুত সুবিধা পাবে।

তিনি বলেন, ‘পল্লী বিদ্যুতের সংযোগ পেতে মাত্র ৬শ’ ৫০ টাকা লাগে। অতিরিক্ত টাকা নেয়ার প্রমাণ পাওয়া গেলে এবং ওই ব্যক্তি যদি পল্লী বিদ্যুতের লোক হয়, তবে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় গ্রহণ করা হবে।’

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

BRTA
Bay Leaf Premium Tea
Intlestore

অসঙ্গতি প্রতিদিন -এর সর্বশেষ

Hairtrade