Bahumatrik :: বহুমাত্রিক
 
৯ আশ্বিন ১৪২৫, মঙ্গলবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৭:৪৮ পূর্বাহ্ণ
Globe-Uro

নদী-খাল-জলাশয় থেকে অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করতে হবে : মৎস্যমন্ত্রী


১২ জুলাই ২০১৮ বৃহস্পতিবার, ০৫:২৪  পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক

বহুমাত্রিক.কম


নদী-খাল-জলাশয় থেকে অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করতে হবে : মৎস্যমন্ত্রী

খুলনা : জেলার ডুমুরিয়া উপজেলা মাসিক আইনশৃঙ্খলা সমন্বয় কমিটির সভা বৃহস্পতিবার শহীদ জোবায়েদ আলী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন ডুমুরিয়া উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোছাম্মত শাহানাজ বেগম। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইন শৃঙ্খলা কমিটির মুখ্য উপদেষ্টা স্থানীয় সংসদ সদস্য (খুলনা ৫ ডুমুরিয়া- ফুলতলা) মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শিক্ষাবিদ নারায়ন চন্দ্র চন্দ এমপি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করেছেন। পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মাদক নির্মূলে আরও কঠোরতা অবলম্বন করতে হবে। বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থাসহ প্রশাসন মাদক ব্যবসায়ীদের যে তালিকা করেছে এর বাইরেও অনেক মাদকের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে। তিনি বরৈন শুধুমাত্র মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার করলে হবে না। মাদক সেবনের সাথে যারা যুক্ত তাদেরকেও আইনের আওতায় আনতে হবে। অভিযাত অনেক পরিবারের সন্তানেরা মাদক সেবনের সাথে যুক্ত। এত ওই পরিবারের মান সম্মান ক্ষুন্ন হচ্ছে। সামাজিক অবক্ষয় বাড়ছে।

মন্ত্রী বলেন নদ-নদী, খাল জলাশয় থেকে অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করতে হবে। পানি সরবরাহে প্রতিবন্ধকতা হতে পারে এমনভাবে কোন খালে বাধ, পাটা ও জাল দেয়া যাবে না। স্লুইজ গেট দিয়ে খালে নোনা পানি প্রবেশ করানো বন্ধ করতে হবে। খাল, জলাশয়ে নোনা পানি প্রবেশ করানোর ফলে দেশীয় প্রজাতির স্বাদুপানির মাছ বিলুপ্তি হয়ে যাচ্ছে। দেশীয় প্রজাতির মাছ রক্ষা করতে মৎস্য মন্ত্রণালয় বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহন করেছে।

মৎস্য মন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ আরও বলেন ভদ্রা ও সালতা নদী খননের প্রতিবন্ধকতা দুর ও অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ করার ব্যবস্থা নিতে হবে। প্রয়োজনের ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করতে উপজেলা নির্বাহি অফিসারসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের প্রতি নির্দেশনা দেন।

তিনি বলেন স্থায়ী পশুহাটের ইজারা গ্রহিতারা কোরবানী ঈদের সময়কে সামনে রেখে তাদের আর্থিক লাভের কথা চিন্তা করে। সিটি কর্পোরেশন বা পৌর এলাকায় যেখানে পশুহাট নেই সেখানে অস্থায়ী পশুহাট বসানোর প্রয়োজন পড়ে। কিন্তু ডুমুরিয়ায় বেশ কয়েকটি পশুহাট রয়েছে। তাই অস্থায়ী পশুহাট বসানোর কোন প্রয়োজন নেই।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান খান আলী মুনসুর, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুরুল ইসলাম মানিক, ভাইস চেয়ারম্যান মো: সিরাজুল ইসলাম. শিরীনা দৌলত, পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সুকলাল বৈদ্য, চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল খোকন, খান শাকুর উদ্দীন, শেখ আবুল হোসেন, জয়নাল আবেদীন, শেখ দিদারুল হোসেন, গাজী হুমায়ুন কবীর বুলু, মোস্তফা সরোয়ার, সুরঞ্জিত বৈদ্য প্রমূখ।

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।