Bahumatrik Multidimensional news service in Bangla & English
 
৫ আশ্বিন ১৪২৪, বুধবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৬:৪৩ অপরাহ্ণ
Globe-Uro

ওয়ালটন আইওটি স্মার্ট ফ্রিজ জাতীয় ক্রিকেট লিগ শুরু ১৫ সেপ্টেম্বর


১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার, ১২:২৩  পিএম

বহুমাত্রিক ডেস্ক


ওয়ালটন আইওটি স্মার্ট ফ্রিজ জাতীয় ক্রিকেট লিগ শুরু ১৫ সেপ্টেম্বর

ঢাকা : টানা সপ্তমবারের মতো জাতীয় ক্রিকেট লিগের (এনসিএল) টাইটেল স্পন্সর হয়েছে ক্রীড়াবান্ধব প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন গ্রুপ। আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে ঘরোয়া ক্রিকেটের সর্বোচ্চ এই আসর। এবারের আসরের নামকরণ করা হয়েছে ‘ওয়ালটন আইওটি স্মার্ট ফ্রিজ ১৯তম জাতীয় ক্রিকেট লিগ ২০১৭-১৮। ’

দুই স্তরে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে আটটি দল। সোমবার দুপুরে মিরপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে স্পন্সর হিসেবে ওয়ালটন গ্রুপের নাম ঘোষণা করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিসিবির পরিচালক ও ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান আকরাম খান, ওয়ালটন গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক (পলিসি, এইচআরএম এন্ড এডমিন) এসএম জাহিদ হাসান, ওয়ালটন গ্রুপের সিনিয়র অপারেটিভ ডিরেক্টর (ক্রিয়েটিভ এন্ড পাবলিকেশন) উদয় হাকিম, ওয়ালটন গ্রুপের সিনিয়র ডেপুটি ডিরেক্টর ও ওয়ালটন গ্রুপের সিনিয়র অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর মিলটন আহমেদ।

বিসিবির পরিচালক ও ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান আকরাম খান বলেন, ‘আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর ১৯তম জাতীয় ক্রিকেট লিগের খেলা শুরু হতে যাচ্ছে। বরাবরের মতো এবারও ওয়ালটন গ্রুপকে আমরা পাশে পেয়েছি। আগামী বছর পর্যন্ত তাদের সঙ্গে আমাদের চুক্তি রয়েছে। গেল বছরের মতোই হবে টুর্নামেন্ট। টায়ার ওয়ান ও টায়ার টু। প্রথম টায়ারের শেষ দলটি রেলিগেশন প্রাপ্ত হয়ে দ্বিতীয় টায়ারে নেমে যাবে। আর দ্বিতীয় টায়ারের শীর্ষস্থানের দলটি প্রথম টায়ারে উন্নীত হবে। এবার পাঁচটি ভেন্যুতে খেলাগুলো অনুষ্ঠিত হবে।’

`আগের আসরগুলোর চেয়ে ম্যাচ ফি বেড়েছে। আগে ম্যাচ ফি ছিল ২৫ হাজার টাকা। সেটা ৩৫ হাজার টাকা করা হয়েছে। ভ্রমণ ভাতাও বেড়েছে। আগে যেখানে ২ হাজার টাকা করে দেওয়া হতো এই আসরে সেটা ২ হাজার ৫০০ টাকা করা হয়েছে। দৈনন্দিন ভাতাও বেড়েছে। এবার ডেইল অ্যালাউন্স দেওয়া হবে ১৫০০ টাকা। আগে যেটা ছিল ১০০০ টাকা-’ বলেন আকরাম খান।

ওয়ালটন গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক এসএম জাহিদ হাসান বলেন, ‘ক্রিকেটের সঙ্গে থাকার সুযোগ করে দেওয়ার জন্য বিসিবিকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। বাংলাদেশের ক্রিকটকে তৃণমূল পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার পেছনে সাংবাদিকদের ভূমিকা অনেক। একটা টুর্নামেন্ট শুরুর খবরটা কিন্তু মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে যায় আপনাদের মাধ্যমে। আপনারা জাতীয় ক্রিকেট লিগ লেখার সময় ওয়ালটনের নামটি যুক্ত করে দেবেন। তাতে করে আমরাও উৎসাহিত হব, ভবিষ্যতে যারা আসবে তারাও উৎসাহ পাবে।’

তিনি বলেন, ‘আসলে আমরা শুধু ক্রিকেটের গ্লামার দেখে পৃষ্ঠপোষকতা করি না। আমরা বিশ্বাস করি, সত্যিকারের ক্রিকেটার তৈরি হয়ে আসে লঙ্গার ভার্সন থেকে। আপনারা জানেন আমরা এনসিএলের সঙ্গে যুক্ত আছি, বিসিএলের সঙ্গে যুক্ত আছি। এই ক্রিকেটার মাধ্যমেই মুস্তাফিজ ও মিরাজের মতো ক্রিকেটাররা উঠে এসেছে। ভবিষ্যতে আরো অনেক মুস্তাফিজ ও মিরাজরা বেরিয়ে আসবে। ১৫ তারিখ থেকে যে টুর্নামেন্ট শুরু হতে যাচ্ছে সেটার সফল পরিসমাপ্তি আশা করছি।’

ওয়ালটন গ্রুপের সিনিয়র অপারেটিভ ডিরেক্টর (ক্রিয়েটিভ এন্ড পাবলিকেশন) উদয় হাকিম বলেন, ‘বিসিবির সঙ্গে আমাদের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক অনেক দিনের। এ নিয়ে টানা সপ্তমবারের মতো জাতীয় ক্রিকেট লিগের স্পন্সর হলাম। এ বছর চলার পরে আগামী বছর পর্যন্ত বিসিবির সঙ্গে আমাদের চুক্তি রয়েছে। অর্থাৎ আগামী বছরও আমরা থাকছি ইনশাল্লাহ। বাংলাদেশে অনেক করপোরেট হাউজ থাকা সত্ত্বেও বিসিবি আমাদের সুযোগ দিয়েছে ক্রিকেটের সঙ্গে থাকার, সে জন্য তাদের ধন্যবাদ জানাই।’

‘আমি মনে করি, জাতীয় ক্রিকেট লিগ তথা লঙ্গার ভার্সন ক্রিকেট হল আসল মূল। অস্ট্রেলিয়ার মতো দলকে আমরা হারিয়ে দিয়েছি। সেটা কিন্তু একদিনে সম্ভব হয়নি। লঙ্গার ভার্স ক্রিকেট কিংবা লম্বা সময় ধরে খেলার অভ্যাসটি কিন্তু এখান থেকেই তৈরি হয়েছে। আমি মনে করি, বাংলাদেশের ক্রিকেটের ভিতকে শক্তিশালী করার জন্য, আমাদের পাইপলাইন সমৃদ্ধ করার জন্য এই জাতীয় ক্রিকেট লিগ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। আপনারা লেখার সময় শুধু জাতীয় ক্রিকেট লিগ না লিখে ওয়ালটন জাতীয় ক্রিকেট লিগ লিখলে আমরা খুশি হব। শুধু আমরা না, এরপর যারা ক্রিকেটে স্পন্সর করতে আসবে তারাও উৎসাহিত হবে। সবাইকে খেলা দেখার আমন্ত্রণ জানাচ্ছি’- বলেন উদয় হাকিম।

 

বহুমাত্রিক.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।